বগুড়ায় অবৈধভাবে ব্যবসায়ীদের সড়ক-ফুটপাত দখল

বগুড়ার সারিয়াকান্দি পৌর এলাকায় মেইন সড়ক ও সড়কের দু’ধারে ফুটপাত অবৈধভাবে ব্যবসায়ীরা দখলে নেয়ায় পথচারীদের চরম দূর্ভোগ পোহাতে হয়। সারিয়াকান্দি শহরের পাবলিক লাইব্রেরী হতে টিপুর মোড় পর্যন্ত প্রতিদিন রাস্তায় নিয়মিত যানজট লেগেই থাকে।

পৌর এলাকার সড়কগুলোতে অপরিকল্পিতভাবে যানবাহন চলাচল, রাস্তা দখল করে যত্রতত্র ভ্যান ও ইজিবাইক স্ট্যান্ডে যাত্রী উঠা-নামা করায় সব সময় যানযট প্রকট সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। এছাড়াও রাস্তা দখল করে গো-খাদ্যের বাজার বসানো সহ বিভিন্ন তেল, সিমেন্ট, মুদি ব্যবসায়ীদের স্বেচ্ছাচারিতায় যখন-তখন রাস্তায় গাড়ি লাগিয়ে লোড-আনলোড করায় যানযটের মূল কারণ।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও পৌর কর্তৃপক্ষের নিষেধ থাকলেও তার তোয়াক্কা না করে ফুটপাত দখলে নিয়েছে সড়কের দুইধারের ব্যবসায়ীরা। ফলে প্রতিদিন স্কুল-কলেজগামী শিক্ষার্থীরা ঝুঁকি নিয়ে মূল সড়ক দিয়ে চলাচল করতে বাধ্য হচ্ছে। এতে করে সঠিক সময়ে বিদ্যালয়ে উপস্থিত না হওয়া ও ছোট খাটো দুর্ঘটনার কবলে পড়ছে শিক্ষার্থীরা।

সরেজমিনে দেখা যায়, মূল রাস্তার দু’পাশের যায়গা ও ফুটপাত স্থানীয় ব্যবসায়ীরা দখলে নিয়ে বিভিন্ন আসবাবপত্রের প্রদর্শনী, গড়ে তোলা হয়েছে স্থায়ী এবং অস্থায়ী দোকান পাট, যার ফলে সাধারণ পথচারিরা বাধ্য হয়ে প্রধান সড়ক দিয়ে চলাচল করতে দুর্ঘটনার সম্মুখীন হচ্ছে।

প্রতি শনিবার ও মঙ্গলবার সাপ্তাহিক হাটের দিনগুলোতে বিভিন্ন এলাকা থেকে হাটে আসা সাধারন জনগণের আনাগোনায় যানযট বেশি পরিলক্ষিত হয়। সারিয়াকান্দি ডিগ্রি কলেজ, আব্দুল মান্নান মহিলা কলেজ, ফাজিল ডিগ্রী মাদ্রাসা, বালক ও বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়সহ বেশকয়েকটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলাফেরা করতে হচ্ছে।

বিগত সময়ে যানজটের কারনে স্থানীয় ও জাতীয় অনলাইন সংবাদমাধ্যম এবং সংবাদপত্রে বেশ কয়েক বার সংবাদ প্রকাশ করা হলে থানা পুলিশ যানযট নিরসনে ব্যবসায়ীদের কবল থেকে ফুটপাত দখলমুক্ত করে। কিছুদিন পর আবার স্থানীয় ব্যবসায়ীরা ফুটপাত দখলে নেওয়ায় এবং যত্রতত্র ইজিবাইক, ভ্যান, অটোরিক্সা স্ট্যান্ড করায় কিছুতেই কমছে না যানজট। ইতোমধ্যে পৌর কর্তৃপক্ষ যানজট নিরসনের লক্ষে বিকল্প একটি রাস্তা নির্মাণের উদ্দ্যোগ নিয়েছে বলে জানা যায়।

এব্যাপারে সারিয়াকান্দি পৌর মেয়র আলমগীর শাহী সুমনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, সারিয়াকান্দিতে একটি মাত্র মূল সড়ক হওয়ার কারনে এই যানজটের সৃষ্টি। এই রাস্তার পাশাপাশি আরও একটি রাস্তা বাইপাস হিসেবে ব্যবহার করার সুযোগ থাকলে মেইন সড়কের উপর চাপ অনেকটাই কমবে এবং সংকটও নিরসন হবে বলে আমি মনে করি। সমস্যাটি দ্রুত সমাধান চেয়ে স্থানীয় সংসদ সদস্যের সু-দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন স্থানীয়রা।