কারাগারে খাবারের ভেতর করে ইয়াবা সরবরাহ

বরিশাল কারাফটক থেকে মহানগর পুলিশের বরখাস্তকৃত কনস্টেবল সুমন হালদার ও তার সহযোগী সাদিয়া বেগম নামে এক নারীকে ১০৯ পিস ইয়াবাসহ গ্রেফতার করা হয়েছে। মঙ্গলবার বেলা ২টার দিকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। পরে সুমন হালদারের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী তার বাসা থেকে আরও ২০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।

গ্রেফতার অপরজন সাদিয়া বেগম (২০) নগরীর লাকুটিয়া সড়কের সজল গাজীর স্ত্রী। কোতোয়ালি মডেল থানা পুলিশের এসআই মো. সাইদুল জানান, বেলা ২টার দিকে বরিশাল কেন্দ্রীয় কাগারারের হাজতি স্বামী সজল গাজীর সঙ্গে দেখা করার ছলে কারা অভ্যন্তরে খাবারের প্যাকেটের ভেতরে বিশেষভাবে ইয়াবা সরবরাহ করছিল সাদিয়া আক্তার নামে ওই নারী।

এ সময় কারারক্ষীদের সন্দেহ হলে তারা ওই খাবার প্যাকেট তল্লাশি করে ১০৯ পিস ইয়াবা উদ্ধার করে। গ্রেফতার সাদিয়া পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানায়, পুলিশ কনস্টেবল সুমন হালদার তাকে ওই ইয়াবা দিয়েছিল কারা অভ্যন্তরে সরবরাহের জন্য। এ সময় কারাফটক থেকে বরখাস্তকৃত কনস্টেবল সুমন হালদারকেও গ্রেফতার করা হয়। পরে সুমন হালদারের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী তার নগরীর নিউ সার্কুলার রোডের বাসা থেকে আরও ২০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।

কনস্টেবল সুমন হালদার ২ বার ইয়াবাসহ বরিশাল পুলিশের হাতে গ্রেফতার হয়েছিল। ২ বছর আগে প্রথম দফায় ইয়াবাসহ গ্রেফতারের পর তাকে সাময়িক বরখাস্ত করে কর্তৃপক্ষ। ওই মামলায় আদালত থেকে জামিন পাওয়ার পর বরখাস্তকৃত অবস্থায় দ্বিতীয়বার ইয়াবাসহ গ্রেফতার হয় সুমন। দুইবার ইয়াবাসহ গ্রেফতারের ঘটনায় সুমনের বিরুদ্ধে বিভাগীয় এবং ফৌজদারী আইনে মামলা বিচারাধীন রয়েছে।