নৈশকোচ খাদে পড়ে নিহতের সংখ্যা বেড়ে আটজন

গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলায় নৈশকোচ খাদে পড়ে নিহতের সংখ্যা বেড়ে আটজনে পৌঁছেছে। এ দুর্ঘটনায় আহত আরো ২৯ জন হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। মুকসুদপুর থানা পুলিশ ৮ জনের নিহতের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। তবে হতাহতের পরিচয় জানাতে পারেনি।

শনিবার রাত আড়াইটার দিকে বরিশাল-ঢাকা মহাসড়কের গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলার বরাইতলা নামক স্থানে সুগন্ধা পরিবহনের একটি নৈশকোচ খাদে পড়ে গিয়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এতে ঘটনাস্থলেই ৬ জন মারা যান। পরে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আরো ২ জনের মৃত্যু হয়।

সুদপুর উপজেলার সিন্ধয়াঘাট পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের এসআই মহিদুল ইসলাম জনান, ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা বরিশালগামী সুগন্ধা পরিবহনের বাসটি বিশম্বরদি এলাকা দিয়ে যাওয়ার সময় চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলেন।

বাসটি সেখানে একটি কালভার্টের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে রাস্তার পাশের খাদে পড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই ছয়জন এবং হাসাপাতালে আরো দুইজনের মৃত্যু হয়। ভাঙ্গা হাইওয়ে পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা পরে ২৫ জনকে উদ্ধার করে মাদারীপুরের রাজৈর, ফরিদপুরে ভাঙ্গা ও ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ পাসপাতালে পাঠায়।

নিহতদের মধ্যে ৪ জনের নাম পাওয়া গেছে। তারা হলেন, পটুয়াখালীর হাসান (৩২), ঝালকাঠির অসীম মাঝি (২৮), আগৈলঝাড়ার দীপন বিশ্বাস (২৮) ও বরগুনার আমতলী উপজেলার নাজির গাজী (৩৬)। বাকি ৪ যাত্রীর নাম-পরিচয় এখনও জানা যায়নি।