অর্থের অভাবে আজ পর্যন্ত টিউমারের চিকিৎসা করাতে পারেনি উত্তম

জন্ম থেকেই ডান চোখে বিশালাকৃতি টিউমারে আক্রান্ত উত্তম কুমার দাস (৩২)। দিন যতই বাড়ছে ততই বড় হচ্ছে তার টিউমারটি। একই সঙ্গে বাড়ছে অসহ্য ব্যথা। কিন্তু অর্থের অভাবে আজ পর্যন্ত কোনো চিকিৎসা করাতে পারেন তিনি। ব্যথা বাড়লেও সময় মতো স্টুডিওতে যেতে হয় তাকে।

উত্তম সদর ইউনিয়নের ফাজিলপুর বাজারে মোনালিসা নামে একটি স্টুডিওতে পিয়নের কাজ করেন। তার বাড়ি ফেনী সদর উপজেলার ৬নং কালিদহ ইউনিয়নের দক্ষিণ মাইজ বাড়িয়া গ্রামে। ওই গ্রামের মৃত জগেশ্বরের ছোট ছেলে তিনি।

উত্তমের বাড়িতে গিয়ে জানা যায়, জন্মগতভাবেই উত্তম এ রোগে আক্রান্ত। বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে তার চোখের টিউমারটিও পুরো মুখজুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে। ফেনীতে বেশ কয়েকটি হাসপাতালে চোখের এই টিউমার দেখিয়েছেন উত্তম, কিন্তু কোনো লাভ হয়নি।

ডাক্তার উত্তমকে বলেছেন, তার চোখের চিকিৎসা দেশে সম্ভব নয়, বিদেশে গিয়ে চিকিৎসা করাতে হবে। এজন্য প্রায় ১০ লাখ টাকা খরচ হবে। এ কথা শোনার পর থেকেই আর কোনো ডাক্তারের কাছে যান না উত্তম। সামান্য পিয়নের চাকরি করে এতো টাকা জোগাড় করা যে অসম্ভব তা আগে বুঝে গেছেন তিনি।

ছয় ভাই-বোনের মধ্যে সবার ছোট উত্তম। সবাই আলাদা থাকেন। ৫ বছর আগে বাবা মারা যাওয়ার পর মাকে নিয়ে থাকেন উত্তম। স্টুডিওতে পিয়নের কাজ করে যা আয় করেন তা দিয়েই চলে মা ও ছেলের সংসার।

উত্তম জানান, জন্ম থেকেই চোখের টিউমারের সমস্যাটি নিয়ে বেশ কষ্টে আছি। চোখে মাংশপেশী ছোট বেলায় কম ছিল, এখন বেড়েছে। তাই ব্যথাও বাড়ছে। মাঝে মাঝে ফুলেও যায় জায়গাটা। ডান চোখের পাশাপাশি বাম চোখেও সমস্যা দেখা দিয়েছে। এক চোখে পৃথিবীর আলো দেখছি। সেটিও বন্ধের পথে। অথচ অর্থের অভাবে ভালো চিকিৎসা করাতে পারছি না।

তিনি জানান, ফেনীসহ ঢাকা-চট্টগ্রামের বিভিন্ন হাসপাতালে অনেক ডাক্তার দেখিয়েছি, সবাই পরামর্শ দিয়েছেন এজন্য দেশের বাইরে যেতে হবে। এতে নাকি ১০ লাখ টাকা খরচ হবে। কোথায় পাবো এতো টাকা?

উত্তমের মা কমলা সুন্দরী জানান, ছেলেকে বিদেশে নেয়ার পরামর্শ দিয়েছেন সবাই। ডাক্তার বলছে, অনেক টাকা লাগবে। কিন্তু এতো টাকা কোথায় পাব আমি? তিনি ছেলের চিকিৎসার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখা হাসিনার সহযোগিতা চেয়েছেন। সে সুস্থ হলে আমি বেঁচে থাকবো। না হলে আমাকে না খেয়ে মরতে হবে।

এ বিষয়ে ফেনীর সিভিল সার্জন ডা. হাসান শাহরিয়ারের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জাগো নিউজকে বলেন, ছবিতে তাকে দেখেছি। সরাসরি দেখে তার চিকিৎসার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। উত্তমের যে রোগ এটি জন্মগত বলে তিনি ধারণা করেন।

উত্তমের বিষয়ে জানতে ও সহযোগিতা করতে কথা বলতে পারেন ০১৮৫৭ ২১৮৭৪০ (বিকাশ) এই নম্বরে।