শ্রীলঙ্কা-ভারত ফাইনাল ধরে পুনঃনির্ধারিত কার্ডও ইস্যু করা হয়!

স্বাগতিকদের হারিয়ে বাংলাদেশ ফাইনালে জায়গা করে নেয়ার পরও ভারতের প্রতিপক্ষ শ্রীলঙ্কা! হ্যাঁ, বাংলাদেশের বিপক্ষে অঘোষিত সেমিফাইনাল শেষ হওয়ার আগেই শ্রীলঙ্কা ফাইনাল খেলবে ভেবে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ড স্টেডিয়ামের অতিথিদের গাড়ির গেট পাস তৈরি করে ফেলেছিল। যেখানে দেখা যাচ্ছে আগামী ১৮ই মার্চ ফাইনালে ভারতের প্রতিপক্ষ শ্রীলঙ্কা।

এদিকে ম্যাচের চিত্র পুরো ভিন্ন। শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে শ্রীলঙ্কা হারিয়ে নিদাহাস ট্রফির ফাইনালে জায়গা করে নিয়েছে বাংলাদেশ। কি ছিল না ম্যাচে। নাটকের পর নাটক, টান টান উত্তেজনার পর শেষ ওভারে প্রয়োজন ১২ রান। মোস্তাফিজ স্ট্রাইকে। বোলার ইসুরু উদানা টানা দুটি বাউন্সার দিলেন। রান আউটও হলেন মোস্তাফিজ; কিন্তু কাঁধের ওপর দুটি বাউন্সারে একটাও ওয়াইড কিংবা নো ডাকলেন না আম্পায়াররা। এরই তুমুল প্রতিবাদ করে ওঠেন সাকিব আল হাসান। মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ এবং রুবেল হোসেনকে মাঠ ছেড়ে বেরিয়ে আসতে বলেন।

ওই অবস্থায় মাহমুদউল্লাহ রিয়াদরা মাঠ ছেড়ে উঠে আসলে ওয়াকওভার পেয়ে যেতো শ্রীলঙ্কা। সে ক্ষেত্রে বিদায় নিতো বাংলাদেশ। শেষ মুহূর্তে এমন মাথা গরম সিদ্ধান্ত অবশ্য ঠেকান টিম ম্যানেজার খালেদ মাহমুদ সুজন। রিয়াদদের তিনি মাঠ থেকে উঠে আসতে দিলেন না। যদিও মাঠের মধ্যেই আম্পায়ার এবং শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটারদের সঙ্গে তর্ক বেধে যায় মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের।

সাকিব যখন বাউন্ডারি লাইনে দাঁড়িয়ে দলকে বার বার উঠে আসতে বলছিলেন, তখন তার পাশে উত্তেজিত ভঙ্গিতে দেখা গিয়েছিল বাংলাদেশ দলের একাদশের বাইরের আরেক ক্রিকেটার নুরুল হাসান সোহানকে। শেষ তিন বলে ১২ রান নিয়ে রিয়াদ যখন বাংলাদেশকে জয় উপহার দিলেন, তখন উল্লাসে ফেটে পড়ে পুরো বাংলাদেশ।