শ্রীদেবী মৃত্যুর নতুন মোড়, মাথায় পাওযা গেল গভীর ক্ষতচিহ্ন!

শনিবার দিবাগত রাত সাড়ে ১১টার দিকে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন বলিউডের প্রথম মহিলা সুপারস্টার শ্রীদেবী। তার মৃত্যু ঘিরে ঘনীভূত হতে শুরু করেছে রহস্য। একটি পারিবারিক অনুষ্ঠানে অংশ নিতে দুবাই যান শ্রীদেবী। এ সময় সঙ্গে ছিলেন স্বামী বনি কপূর ও ছোট মেয়ে খুশি। সেখানে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি।

সোমবারই ময়নাতদন্তের রিপোর্টের দাবি করা হয়, অভিনেত্রীর হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়নি। বেসামাল হয়ে গিয়ে বাথটবে পড়ে জলে ডুবে মৃত্যু হয়েছে শ্রীদেবীর। এবার মৃত্যু রহস্যে নয়া মোড়। বলিউড অভিনেত্রীর মাথায় পাওযা গেল গভীর ক্ষতচিহ্ন। এশিয়ানেট নিউজ সূত্রে খবর। দুবাইয়ে স্বামী বনি কাপূরের পাসপোর্ট আটক। তৃতীয়বার জেরা বনিকে। হোটেলের সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

শ্রীদেবীর মৃত্যুর সময়কে কেন্দ্র করেও তৈরি হয়েছে নতুন প্রশ্ন। সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, ময়নাতদন্তের রিপোর্ট অনুযায়ী, শনিবার রাত ১০টা বেজে ১ মিনিটে মৃত্যু হয় অভিনেত্রীর। দুবাইয়ের স্থানীয় সময় অনুসারে বিকেল সাড়ে ৫টা নাগাদ বনি কপূর শ্রীদেবীকে হোটেলের বাথটবে সংজ্ঞাহীন অবস্থায় দেখতে পান। এক বন্ধু ও হোটেল কর্মীদের ডাকেন বনি।

এরপর শ্রীদেবীকে বাথটব থেকে তুলে সংজ্ঞা ফেরানোর চেষ্টা করা হয়। শেষপর্যন্ত রাত ৯টা নাগাদ জানানো হয় পুলিশকে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট অনুযায়ী, রাত ১০টা ১ মিনিটে মৃত্যু হয়েছে শ্রীদেবীর। মৃত্যু এবং পুলিশে খবর দেওয়ার মধ্যে কেন একঘণ্টার ব্যবধান, তা নিয়ে উঠছে প্রশ্ন। কোনও চিকিত্সককে ডাকা হয়েছিল কিনা, সে সম্পর্কে নিশ্চয়তা মেলেনি। খবর সংবাদমাধ্যম সূত্রে।