পরিচয় মিলেছে রেলস্টেশনে ব্যাগবন্দি তরুণীর!

রাজধানীর বিমানবন্দর রেলস্টেশন থেকে ব্যাগবন্দি অবস্থায় উদ্ধার হওয়া মরদেহটির পরিচয় মিলেছে। মরদেহটি মিরপুরের পল্লবী থেকে নিখোঁজ হওয়া কলেজ পড়ুয়া আঁখি আক্তার (১৮) নামের এক তরুণীর।

রোববার বিকেলে ওই তরুণীর মামা নূর ইসলাম ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে এসে মরদেহটি শনাক্ত করেন। নিহতের বাড়ি মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলার আন্ডারচর গ্রামে। মা-বাবা দুজনেই প্রবাসী হওয়ায় আঁখি মিরপুর ১২ নম্বর সেকশনের ই-ব্লকের একটি বাসায় মামা নূর ইসলামের কাছেই থাকতেন। নূর ইসলাম জানান, আঁখি পল্লবীর শহীদ জিয়া মহিলা ডিগ্রি কলেজের উচ্চ-মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী ছিলেন।

শনিবার বেলা ১১টার দিকে কলেজ যাওযার কথা বলে বাসা থেকে বের হয় আঁখি। এরপর আর বাসায় না ফেরায় গত রাতেই পল্লবী থানায় নিখোঁজের বিষয়ে একটি সাধারণ ডায়েরি করেন নূর ইসলাম। এরপর বিভিন্ন জায়গায় তাকে খোঁজাখুঁজি করা হয়। মরদেহ উদ্ধারের খবর পেয়ে ঢামেক মর্গে গিয়ে আঁখির মরদেহ শনাক্ত করেন স্বজনরা। কলেজছাত্রী আঁখিকে কে বা কারা কেন হত্যা করেছে সে বিষয়ে কোনো তথ্য দিতে পারেননি মামা নূর ইসলাম।

এর আগে ভোর সোয়া ৪টার দিকে বিমানবন্দর রেলস্টেশনের পার্কিংয়ের দক্ষিণ পাশ থেকে একটি কালো ব্যাগের ভেতর থেকে তরুণীর মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায় ঢাকা রেলওয়ে থানা পুলিশ। ঢাকা রেলওয়ে থানার ওসি ইয়াসিন ফারুক মজুমদার জানান, বিমানবন্দর রেল স্টেশনের পার্কিংয়ে একটি কালো রংয়ের ব্যাগের ভেতর থেকে অজ্ঞাত পরিচয় ওই তরুণীর মরদেহ রেখে পালিয়ে গেছে দুর্বৃত্তরা।

ধারণা করা হচ্ছে তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যার পর মরদেহ গুমের উদ্দেশে ব্যাগের ভেতরে ভরে ফেলে রেখে যায় দুর্বৃত্তরা। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুর আসল কারণ জানা যাবে। তিনি জানান, আমরা চেষ্টা করেছি তরুণীর পরিচয় জানার। তবে সন্ধ্যায় তরুণীর মামা নূর ইসলাম নিহতের মরদেহ দেখে পরিচয় নিশ্চিত করেছেন।