‘জনগণকে দুভোর্গ থেকে রক্ষা করতে এটা প্রয়োজন ছিল’

শনিবার সকাল ১০ টার দিকে কালো পতাকা প্রদর্শন কর্মসূচিতে অংশ নিতে নেতাকর্মীরা নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে জড়ো হতে। বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে দলটির পূর্বঘোষিত কালো পতাকা প্রদর্শন কর্মসূচি পুলিশের বাধার মুখে পড়েছে।

স্বরাষ্টমন্ত্রী আসাদুজ্জামান কামাল বলেছেন, গণতান্ত্রিক আন্দোলনে আমরা কখনোই বাধা দিচ্ছি না। কিন্তু যখনই কেউ মাত্রাতিরিক্ত করে, জনগণের দুভোর্গ বাড়িয়ে দেয়, রাস্তা বন্ধ করে দেয় তখনই আমাদের আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী যে কাজটি করা দরকার সে কাজটিই করে থাকে। রাজধানীর নয়াপল্টনের জনগণকে দুভোর্গ থেকে রক্ষা করতে এটা প্রয়োজন ছিল।

আজ সকালে প্রায় শতাধিক বিএনপি নেতাকর্মী রাজধানীর নয়াপল্টন কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নিয়ে ৩০ মিনিট বিক্ষোভ করেন। এ সময় হঠাৎ পুলিশ বিক্ষুদ্ধ নেতাকর্মীদের ওপর চড়াও হয়। এত হতাহতের ঘটনা ঘটে। আহত হন বেশ কয়েকজন মহিলা দলের নেত্রী। এ কর্মসূচি চলাকালে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব মোয়াজ্জেম হোসেন আলালসহ অন্তত ২৫ জন নেতা-কর্মীকে আটক করা হয়েছে বলে দলীয় সূত্রে জানা গেছে। এ ঘটনার প্রেক্ষিতেই কথা বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

আপজ শনিবার কুমিল্লার বরুড়ায় আইনশৃঙ্কলা কমিটির সভা শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন। এ  সভায় জেলা প্রশাসক মো. জাহাংগীর আলম, পুলিশ সুপার শাহ আবিদ হোসেনসহ অনেকে উপস্থিত ছিলেন।

স্বরাষ্টমন্ত্রীর শ্বশুর বাড়ি কুমিল্লার বরুড়া উপজেলার আদ্রা ইউনিয়নের নলুয়া মনোহরপুর গ্রামে যাওয়ার আগে তিনি ওই সভা করেন। এরপর নলুয়া উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে সংবধর্না অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ ও  মনোহরপুর নূরানী মাদ্রাসার ভিত্তি প্রস্তর স্থাপনের কথা রয়েছে।

বরুড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাজহারুল ইসলাম বলেন, ইতিমধ্যে প্রসাশনের পক্ষ থেকে সকল প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। স্বরাষ্টমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে প্রস্তুতিপর্ব পরিদর্শন করেন কুমিল্লা জেলা পুলিশ সুপার শাহ আবিদ হোসেন।