এসএসসি পরীক্ষায় প্রশ্নপত্রে ভুল, চরম শঙ্কায় ২৫৪ পরীক্ষার্থী!

এবারের চলমান এসএসসি ও সমমান পরীক্ষায় অভিযোগের যেন শেষ নেই। পরীক্ষার শুরু থেকে ধারাবাহিকভাবে প্রশ্নফাঁসের সমালোচনা ছিল দেশেব্যাপী। এত্তসব সমালোচনা অভিযোগের মধ্যে এবার রাজধানীর একটি কেন্দ্রে দু’টি বিষয়ে ভুল প্রশ্নপত্রে পরীক্ষা নেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ নিয়ে চরম শঙ্কায় রয়েছেন রাজধানীর মান্ডা এলাকার হায়দার আলী স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্রের ২৫৪ পরীক্ষার্থী। পরীক্ষার ফলাফল নিয়ে উদ্বিগ্ন ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা এ সমস্যা সমাধানের পাশাপাশি দায়ীদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নিতে আজ শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন করেছেন।

মানববন্ধনে জানানো হয়, বৃহস্পতিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) এসএসসি পরীক্ষায় বিজ্ঞান বিভাগের উচ্চতর গণিত ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের বিজ্ঞান বিষয়ে পরীক্ষা সারাদেশে ‘ক’ সেটের প্রশ্নপত্রে অনুষ্ঠিত হয়েছে। কিন্তু রাজধানীর হায়দার আলী স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্রে বোর্ডের নির্দেশ অমান্য করে দু’টি বিষয়ের পরীক্ষা ‘খ’ সেটের প্রশ্নপত্রে নেওয়া হয়।

এই ঘটনায় ফলাফল বিপর্যয় ঝুঁকিতে হায়দার আলী স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্রে পরীক্ষা দেওয়া মানিকনগর মডেল হাই স্কুলের ২৫৪ জন শিক্ষার্থী।

মানববন্ধনে অংশ নেয়া শিক্ষার্থী ও অভিভাকরা বলেন, যেহেতু সারাদেশে ‘ক’ সেটের প্রশ্নপত্রে পরীক্ষা নেওয়া হয়েছে। সেহেতু বোর্ড থেকে খাতা মূল্যায়নের জন্য ‘ক’ সেটের নির্দেশনা দেওয়া থাকবে। যেসব শিক্ষক খাতা মূল্যায়ন করবেন তাদের হাতেও ‘ক’ সেটের প্রশ্নপত্র থাকবে। কিন্তু এই ২৫৪ জন শিক্ষার্থীর খাতায় ‘খ’ সেটের প্রশ্নের পত্রের উত্তর লেখা।

‘ফলে এই কেন্দ্রের সব পরীক্ষার্থী এই দুটি বিষয়ে ফেল করবে। যাচাই করে দেখা যায় ‘ক’ সেটের সঙ্গে ‘খ’ সেটের প্রশ্নপত্রের কোনো মিল নেই।’

কতৃপক্ষের ভুল সিদ্ধান্তের শিকার এসব শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের দাবি, তাদের পরীক্ষার খাতা যেন ‘খ’ সেটের প্রশ্নপত্র দ্বারা মূল্যায়ন করা হয়।

মানববন্ধনে অংশ নেয়া শিক্ষার্থীরা এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী, শিক্ষামন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্টদের হস্তক্ষেপ কামনা করে দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে এবং ফলাফল বিপর্যয় ঠেকাবার ব্যবস্থার আহ্বান জানান।

ক্ষোভ প্রকাশ করে শিক্ষার্থীরা বলেন, কর্তৃপক্ষের অন্যায়, ভুলের বলি আমরা হবো কেন? দায়ী ব্যক্তিদের উপযুক্ত শাস্তি দিতে হবে। ফলাফল বিপর্যয় হলে আমরা কাউকে ক্ষমা করবো না।