ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের সহায়তা করবে স্কেইলআপ বাংলাদেশ

এতে ক্ষুদ্র উদ্যোক্তারা বিনিয়োগ ও ব্যবসা পরিচিলনার পরামর্শ পাবেন। ইন্টারন্যাশনাল ফাইন্যান্স কর্পোরেশন (আইএফসি)-এর সহযোগিতায় বেটারস্টোরিজ লিমিটেড প্রোগ্রামাটি পরিচালনা করবে। রাজধানীতে বৃহস্পতিবার স্কেইলআপ বাংলাদেশের অ্যাক্সিলারেটর প্রোগ্রামের উদ্বোধন করেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।যে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ৫ থেকে ২০০ জন কর্মচারী কর্মরত রয়েছে, বাণিজ্যিকভাবে টেকসই, বিনিয়োগকারীর সহায়তা প্রয়োজন এমন উদোক্তারা এই প্রোগ্রামের জন্য আবদেন করতে পারবেন। তবে নারী উদ্যোক্তা ও কৃষি ভিত্তিক ছোট  মাঝারি ব্যবসা, উপকূলবর্তী  সবুজ প্রযুক্তির অগ্রাধিকার দেয়া হবে বলে জানানো হয়েছে।

অনুষ্ঠানে বেটার স্টোরিজ লিমিটেডের চিফ স্টোরিটেলার মিনহাজ আনোয়ার বলেন, নতুন উদ্যোক্তারা সঠিক দিক নির্দেশনার অভাবে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের প্রসার করতে পারেন না। স্কেইলআপ বাংলাদেশের এই আয়োজন দেশের উদ্যোক্তাদের সহায়তা করবে। এ ছাড়া বিনিয়োগের অভাবে অনেক ক্ষুদ্র ব্যবসা বড় হতে পারছে না, তারাও সহযোগিতা পাবেন। এই ঠিকানা থেকে উদ্যোক্তারা এই প্রোগ্রামে অংশগ্রহণের জন্য আবেদন করতে পারবেন। এরপর বাছাইকৃত উদ্যোক্তারা এই প্রোগ্রামে ৩ সপ্তাহ আবাসিক বুট ক্যাম্প, ব্যবসা মডেল তৈরি ও আর্থিক অবকাঠামো গঠনসহ নানা সহযোগীতা পাবেন।

উল্লেখ্য স্কেইলআপ বাংলাদেশ গঠিত হয়েছে বাংলাদেশ স্টার্টআপ কাপ ২০১৭ এর সফলতার উপর ভিত্তি করে। যা অ্যাম্বাসি অফ দ্যা কিংডম অফ দ্যা নেদারল্যান্ডস, আভিষ্কার ইন্ডিয়া এবং বেটারস্টোরিজ এশিয়ার সহযোগিতায় অনুষ্ঠিত হয়েছিল। সেই ধারাবাহিকতায় স্কেইলআপ বাংলাদেশ প্রোগ্রামটি চলু হলো। সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন ইন্টারন্যাশনাল ফাইন্যান্স কর্পোরেশন (আইএফসি)-এর অপারেশন অফিসার হারশ  ভিভেক, বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিডা)-এর  নির্বাহী চেয়ারম্যান কাজী এম আমিনুল ইসলাম, বেটারস্টোরিজ লিমিটেডের বিনিয়োগ বিভাগের প্রধান জয়া চৌধুরীসহ আরো অনেকে।

এই প্রোগ্রামে সহযোগী হিসেবে রয়েছে আভিষ্কার, ক্লাইমেট বিজনেস ইনোভেশন নেটওয়ার্ক,পাম, নেদারল্যান্ডস, ব্রিটিশ কাউন্সিল এবং গ্রামীণফোন অ্যাক্সেলারেটর।