আসন্ন ত্রিদেশীয় সিরিজে বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দিতে পারবেন সাকিব?

চোট পেয়েছিলেন গেল মাসে। ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে খেলার সময়। এরপর মাঠের বাইরে ছিটকে পড়া বাংলাদেশের টেস্ট এবং টি-টুয়েন্টি দলের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান ছিলেন মাঠের বাইরে। বৃহস্পতিবার আবার মাঠে ফিরেছেন। ফিটনেস ট্রেনিং শুরু হলো। সাকিবের আশা, মার্চের শুরুতে শ্রীলঙ্কায় শুরু ত্রিদেশীয় টি-টুয়েন্টি আসরে বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দিতে পারবেন তিনি।

‘এখন ভালো আছি।’ বৃহস্পতিবার মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামের জিমনেসিয়ামে ফিটনেস ট্রেনিংশেষে ফেরার সময় সাকিব জানালেন, ‘তবে চিকিৎসকরা বলতে পারবেন আরো ভালো করে।’ বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী জানিয়েছেন, আগামী তিন চারদিনের মধ্যে বিশ্বসেরা এই অল রাউন্ডার নেটে ব্যাটিং-বোলিং শুরু করতে পারবেন। সুতরাং, শ্রীলঙ্কায় তার ত্রিদেশীয় আসরে খেলার সম্ভাবনার মধ্যে এই মুহূর্তে কোনো শঙ্কা দেখা যাচ্ছে না।

সাকিবের সুস্থ্য হয়ে ফিরে আসা বাংলাদেশের ক্রিকেটের জন্য অবশ্যই বড় খবর। এমনিতে দলটির প্রধান কোচ নেই। ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে শ্রীলঙ্কার কাছে হারতে হয়েছে। এরপর দুই টেস্ট ও দুই টি-টুয়েন্টি সিরিজে হারতে হয়েছে। দ্বিতীয় টেস্ট ও দুই টি-টুয়েন্টি ম্যাচে দলের বাজে পারফরম্যান্স খুব চোখে পড়েছে। সমালোচনা হয়েছে বিস্তর। দলের ওপর খাপ্পা খোদ বিসিবি প্রেসিডেন্ট নাজমুল হাসান পাপনও।

সাকিবকে অধিনায়ক রেখেই শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ১৫ ও ১৮ ফেব্রুয়ারির টি-টুয়েন্টি দল ঘোষণা করেছিল বিসিবি। কিন্তু প্রথম ম্যাচের আগেই জানা যায়, সাকিবের ওই সিরিজেই খেলার সম্ভাবনা নেই। তখন নির্বাচকরা কেন এমন করলেন তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছিল। সেই সাকিব ২২ ফেব্রুয়ারি ফিরলেন ফিটনেস ট্রেনিংয়ে। এদিনই দুবাইয়ে শুরু পাকিস্তান সুপার লিগের (পিএসএল) প্রথম দিকটায় থাকতে পারলেন না সাকিব। তার বদলে পেশোয়ার জালমিতে যোগ দিয়েছেন সাব্বির রহমান।