‘সর্বস্তরে বাংলার ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে’

এখনও সর্বস্তরে বাংলা ভাষার ব্যবহার নিশ্চিত না হলেও অদূর ভবিষ্যতে তা নিশ্চিত হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন বিশিষ্টজনরা। বুধবার সকালে একুশে ফেব্রুয়ারি উপলক্ষে শহীদ মিনারে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে এসে সাংবাদিকদের কাছে এ আশাবাদ প্রকাশ করেন তারা।

প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন বলেন, ‘অনেক বিচারক বাংলায় মামলার রায় দিচ্ছেন, শুনানিও হচ্ছে বাংলাতে। বাংলার ব্যবহার হচ্ছে না এটা বলা যাবে না।’ প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা বলেন, ‘নির্বাচন কমিশনের প্রায় সব কাজে বাংলা ব্যবহার হয়। কেবল বিদেশের সঙ্গে যোগাযোগের ক্ষেত্রে ইংরেজি ব্যবহার করা হয়। কিছু ক্ষেত্রে ইংরেজি আছে। শিগগিরই সেসব বাংলা করা হবে। একজন কমিশনারের অধীনে এ কাজ হচ্ছে।’

বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবদুল মান্নান বলেন, ‘এটা ঠিক যে আমরা সর্বস্তরে বাংলা ভাষার ব্যবহার নিশ্চিত করতে পারিনি। এক্ষেত্রে আমরা জাতি হিসেবে ব্যর্থ হয়েছি। বাংলা ভাষার চর্চা কমেছে। এখন সবার মাঝে সন্তানদের ইংরেজি মাধ্যমে পড়াশুনা করানোর একটা প্রবণতা দেখা যায়। এটা সম্পূর্ণ কৃত্রিম। তবে ইংরেজিসহ অন্য ভাষা শিখতে আমি কাউকে নিরুৎসাহিত করবো না। তবে সবার আগে বাঙালি হিসেবে আমাদের বাংলা ভাষার চর্চা করতে হবে। সেটা করার জন্য সর্বস্তরে বাংলা ভাষার ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে।’

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক হারুন-অর-রশিদ বলেন, ‘নানা কারণে সর্বস্তরে বাংলা ভাষার ব্যবহার নিশ্চিত হয়নি। তবে অফিস-আদালতে বাংলা ভাষার প্রচলন শুরু হয়েছে। আদালতে বাংলা ভাষায় রায় লেখা হচ্ছে। ফলে আশা করা যায় অদূর ভবিষ্যতে সর্বস্তরে বাংলা ভাষার ব্যবহার নিশ্চিত হবে।’