প্রক্টরের অপসারণের দাবিতে চবি ছাত্রলীগের একাংশের অবরোধ

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) প্রক্টর মো. আলী আজগর চৌধুরীর অপসারণের দাবিতে ক্যাম্পাসে অবরোধ করার চেষ্টা করেছে ছাত্রলীগের একাংশ। এসময় তারা শাটল ট্রেন আটকে রাখার ও মূল ফটক বন্ধ করার চেষ্টা করলে পুলিশ তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। মঙ্গলবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের জিরো পয়েন্ট এলাকায় অবরোধের এ ঘটনা ঘটে। অবরোধকারী ছাত্রলীগের একাংশের নেতাকর্মীরা নগর মেয়র আজম নাসিরের অনুসারী হিসাবে ক্যাম্পাসে পরিচিত।

ছাত্রলীগ সূত্র জানায়, সোমবার মধ্যরাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের হলে অভিযানের সময় প্রক্টর মো. আলী আজগর চৌধুরীর নির্দেশে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের মারধর ও কয়েকজন নেতাকর্মীকে আটক করে পুলিশ। এর প্রতিবাদে তারা প্রক্টরের অপসারনের দাবীতে ক্যাম্পাস অবরোধ করে। এ ব্যাপারে চবি ছাত্রলীগের স্থগিত কমিটির সাবেক সভাপতি আলমগীর টিপু বলেন, ছাত্রদের ওপর অহেতুক হামলার ঘটনায় প্রক্টর আলী আজগর চৌধুরীর সম্পৃক্ততা রয়েছে। তার অব্যাহতি চেয়ে অবরোধের ডাক দিয়েছি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মহসিন মিয়া বলেন, প্রক্টরের অপসারণের দাবীতে ছাত্রলীগের কিছু নেতাকর্মী স্লোগান দিতে থাকে। পুলিশ তাদের শান্তিপূর্ণভাবে অবস্থান করতে বললে তারা মূল ফটকে তালা দিয়ে ভাঙচুর করার চেষ্টা করে। পরে টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে অবরোধ ছত্রভঙ্গ করে দেয় পুলিশ।

উল্লেখ্য সেমাবার আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষের পর দুইটি আবাসিক হলে তল্লাশি অভিযান চালায় পুলিশ। অভিযানে বেশ কয়েকজনকে আটক ও পরিত্যক্ত অবস্থায় দুইটি কাটা রাইফেল, দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র উদ্ধার করা হয়।