‘খালেদা জিয়া কি জানতেন, ফেব্রুয়ারি মাসে তাকে জেলে যেতে হবে’

বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া নিজের ফাঁদে নিজেই আটকা পড়েছেন বলে মন্তব্য করেছেন নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না।

শুক্রবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে এক আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন। ‘রাষ্ট্রভাষা বাংলা ও বাংলাদেশের ভবিষ্যৎ’ শীর্ষক ওই আলোচনা সভার আয়োজন করে সোনার বাংলা পার্টি। মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ‘নিম্ন আদালত সরকারের হুকুম ছাড়া কোনও কিছু করতে পারেন না। অনেক আইনজীবী বলছেন, নিম্ন আদালত কোনও রায় সম্পন্ন করার আগে রায় দিতে পারেন না। হাইকোর্ট কোনও রায় দিলে তা পূর্ণাঙ্গ করতে সময় লাগতে পারে। কিন্তু নিম্ন আদালত পূর্ণাঙ্গ রায় না লিখে তা দিতে পারেন না। এগুলো আমার কথা নয়, আইনজীবীদের কথা। কিন্তু সাত দিনেও খালেদা জিয়ার তার রায়ের কপি দেওয়া হলো না, এ জন্য তার প্রতি আমি পূর্ণ সহমর্মিতা জানাচ্ছি।’

তিনি বলেন, ‘খালেদা জিয়াও তিন বার প্রধানমন্ত্রী ছিলেন। তিনি জানেন না নিম্ন আদালত কীভাবে চলে, সেখানে কী হয়! কিন্তু তিনি কিছুই করেননি। সেই জন্য আজ তিনি নিজের ফাঁদে নিজেই পড়েছেন।’ নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক আরও বলেন, ‘৮ তারিখে জিয়ার রায় ঘোষণার মধ্য দিয়ে এবং তারও আগে তার মামলার রায়কে কেন্দ্র করে বাংলাদেশে সেই রকম একটি পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। এই পরিস্থিতি আমাদের সামনে দেখতে সুযোগ দেয় না আর। দুর্নীতির মামলায় খালেদা জিয়ার সাজা হওয়ার মাধ্যমে আগামী জাতীয় নির্বাচনের প্রেক্ষাপট চূড়ান্ত অনিশ্চিত অবস্থার দিকে যাচ্ছে। আজকে বিএনপির নেতা মওদুদ আহমদ বলেছেন, খালেদা জিয়ার রায়ের মধ্যে দিয়ে সরকার সঙ্গে সমঝোতার পথ বন্ধ হয়ে গেছে।’

মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ‘আমি কোনও ঝামেলায় যেতে চাই না। কিন্তু এদেশের এরকম একটা অবস্থা যে আপনি ঝামেলার বাইরে থাকতে পারছেন না। প্রত্যেকটা মানুষের ভবিষ্যৎ অনিশ্চিত। শেখ হাসিনার ভবিষ্যৎ কি নিশ্চিত? খালেদা জিয়া কি জানুয়ারি মাসে জানতেন, ফেব্রুয়ারি মাসে তাকে জেলে যেতে হবে? আমাদের দেশে এই রকম অনিশ্চিতের!’

আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন বিকল্প ধারা বাংলাদেশের সভাপতি অধ্যাপক একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের ইমেরিটাস অধ্যাপক আবুল কাশেম ফজলুল হক, বাসদের সাধারণ সম্পাদক খালেকুজ্জামান, সোনার বাংলা পার্টির সভাপতি শেখ আব্দুন নূর, সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ হারুন-অর-রশীদ প্রমুখ।