বহিষ্কার করাই কি ছিল স্কুলে হামলার মুল কারণ?

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডার পার্কল্যান্ড শহরের একটি হাই স্কুলে ছাত্রের গুলিতে অন্তত ১৭ জন নিহত হয়েছে বলে জানা যায়।

পুলিশ বলেছে, আটককৃত ঘাতক ১৯ বছর বয়সি নিকোলাস ক্রুজ এবং স্কুল থেকে বহিষ্কারের পর প্রতিশোধ নিতে সে এই জঘন্য হত্যাকাণ্ড চালিয়েছে।

স্কুলের ভেতরে থাকা প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ঘাতক ক্রুজ প্রথমে স্কুলের ফায়ার এলার্ম অন করে দেয় এবং এর ফলে শিক্ষার্থীরা যখন আতঙ্কে ছোটাছুটি শুরু করে তখন সে তাদের ওপর স্বয়ংক্রিয় অস্ত্রের সাহায্যে গুলি চালায়। এ ঘটনায় শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি অন্তত একজন শিক্ষক এবং একজন স্কুলকর্মী নিহত হয়েছেন।

দক্ষিণ ফ্লোরিডার ব্রোয়ার্ড কাউন্টির শেরিফ ইসরাইল সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, ঘাতক ছাত্র ক্রুজের কাছ থেকে একটি স্বয়ংক্রিয় এআর-১৫ রাইফেল এবং গুলিভর্তি অসংখ্য ম্যাগজিন পাওয়া যায়। তিনি আরও জানিয়েছেন, ক্রুজ স্কুলের বাইরে একটি রাইফেল দিয়ে গুলি করা শুরু করলে ৩ জন মারা যায়। এরপর স্কুলের ভেতরে ঢুকে ১২ জনকে হত্যা করে। হাসপাতালে নেয়ার পর মারা যান আরো দুই জন।

গুলিবর্ষণ শুরু হওয়ার পরপরই পুলিশ ঘটনাস্থলে ছুটে যায় এবং ক্রুজকে আটক করতে সক্ষম হয়। পরে আক্রমণকারী ক্রুজ সহ ১৭ জনকে হাসপাতালে নেয়া হয়। প্রাথমিক চিকিৎসার পর ক্রুজকে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

বহিষ্কার করাই কি ছিল স্কুলে হামলার মুল কারণ?

প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প টুইট করে হতাহতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান। আকাশ থেকে নেয়া ছবিতে স্কুলের আঙিনায় আহত ছাত্রদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিতে এবং শিক্ষার্থীদেরকে লাইন বেধে উদ্ধার করে নিয়ে যেতে দেখা গেছে।