খালেদার মুক্তির দাবিতে দিনব্যাপী বিএনপির অনশন

দুর্নীতির মামলায় সাজাপ্রাপ্ত বিরোধী দলি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে দিনব্যাপী অনশন কর্মসূচি পালন করেছে তার দলের নেতা কর্মীরা। বুধবার সকাল ১০টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে শুরু হওয়া এই কর্মসূচিতে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতারাসহ তাদের জোটসঙ্গী দল এবং বিভিন্ন সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা অংশ নিচ্ছেন।

জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বুধবার সকাল ১০টায় শুরু হওয়া এই কর্মসূচিতে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতারাসহ তাদের জোটসঙ্গী দল এবং বিভিন্ন সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা অংশ নিচ্ছেন। গত ৮ ফেব্রুয়ারি খালেদা বন্দি হওয়ার পর দুদিনের বিক্ষোভের পর মানববন্ধন ও অবস্থান কর্মসূচি শেষে এই প্রতীকী অনশনে বসছে বিএনপি।

প্রেস ক্লাবের সামনের ফুটপাতে মাদুর বিছিয়ে বসেছেন নেতারা; তাদের বক্তব্যের সঙ্গে স্লোগান দিয়ে যাচ্ছেন কর্মীরা। বিকাল ৪টা পর্যন্ত এই কর্মসূচি চলবে বলে বিএনপি নেতারা জানিয়েছেন।

অনশনের শুরুতে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে দেখা যায়নি। তিনি মামলায় হাজিরার জন্য আদালতে গেছেন জানিয়ে দলীয় নেতারা বলেছেন, আদালত থেকে ফিরে তিনি অনশনে যোগ দেবেন।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মির্জা আব্বাস, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফ, নিতাই রায় চৌধুরী, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবির খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন অনশনে রয়েছেন।

২০ দলীয় জোটের নেতাদের মধ্যে রয়েছেন এলডিপির সাহাদাত হোসেন সেলিম, লেবার পার্টির একাংশের হামদুল্লাহ আল মেহেদী, ন্যাপের গোলাম মোস্তফা ভুঁইয়া

বিএনপি সমর্থক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, চিকিৎসক, প্রকৌশলী, আইনজীবীও অনশনের কর্মসূচির প্রতি একাত্মতা প্রকাশ করে বক্তব্য রাখছেন।

অনশনস্থল ঘিরে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে ব্যাপক সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। রাখা হয়েছে জল কামানের গাড়িও। তবে কোনো ধরনের গোলযোগ শুরুতে ঘটেনি।