বিক্ষোভে মাঠে না নেমে কার্যালয়ের বারান্দায় রিজভী

দুর্নীতি মামলায় বেগম খালেদা জিয়ার সাজার প্রতিবাদে কেন্দ্র ঘোষিত দেশব্যাপী বিক্ষোভের অংশ হিসেবে রাজধানীর নয়াপল্টনে মিছিল করেছে নেতাকর্মীরা। পুলিশের কড়া পাহারায় অনুষ্ঠিত মিছিলে তেমন কোনো কেন্দ্রীয় নেতারা ছিলেন না। শুরুতে কোনো ঝামেলা না হলেও শেষের দিকে পুলিশ ধাওয়া দিয়ে কয়েকজনকে আটক করেছে। বাদ জুমা নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে মিছিল শুরু মিছিলে অংশ না নিলেও ভবনের তৃতীয় তলার বারান্দায় দাঁড়িয়ে হাত নেড়ে নিজের উপস্থিতির জানান দেন রুহুল কবির রিজভী।

এ সময় রিজভীর সঙ্গে দেখা গেছে কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-দপ্তর সম্পাদক বেলাল হোসেন, নির্বাহী কমিটির সদস্য আমিনুল ইসলামসহ কয়েকজন দপ্তরের কর্মকর্তা ও কর্মচারীকে। গত কয়েকদিন ধরে নয়াপল্টনে অবস্থান করছেন বিএনপির এই সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব। রাতদিন সেখানেই থাকছেন। মাঝে মাঝে সংবাদ সম্মেলন করে দলের বক্তব্য গণমাধ্যমে তুলে ধরছেন। আজও মিছিলের আগে দলের কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে রিজভী বলেন, ‘সরকার প্রধান সম্পূর্ণ প্রতিহিংসাপরায়ণতায় কেবলমাত্র আদালতকে ব্যবহার করে নয়, সমস্ত রাষ্ট্রশক্তিকে ব্যবহার করে বেগম খালেদা জিয়া এবং তারেক রহমানের বিরুদ্ধে রায় দেয়া হয়েছে। জনতার প্রতিরোধের মুখে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিতে সরকার বাধ্য হবে।’

বৃহস্পতিবার জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বেগম খালেদা জিয়া, তারেক রহমানসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে সাজার রায় দেন ঢাকার বিশেষ জজ আদালতের বিচারক আখতারুজ্জামান। রায়ে খালেদা জিয়াকে পাঁচবছরের সাজা ও অন্যদের ১০ বছর সাজা এবং আর্থিক জরিমানা করা হয়। এই রায়ের পর কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মলন করে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর শুক্রবার বাদ জুমা ও শনিবার দেশব্যাপী বিক্ষোভ কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

কেন্দ্র ঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে জুমার পর নয়াপল্টন ও বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদ থেকে মিছিল করে বিএনপি নেতাকর্মীরা। শুরুতে বাধা না দিলেও নয়াপল্টনের গলিতে গেলে পুলিশ ধাওয়া দেয়। পরে কয়েকজনকে আটক করা হয়। পুলিশের মতিঝিল বিভাগের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (এডিসি) শিবলী নোমান সাংবাদিকদের বলেন, বায়তুল মোকাররম থেকে যখন মিছিল বের হয় তখন পু‌লি‌শের পক্ষ থেকে কোনো বাধা দেয়া হয়নি।

তবে কাকরাইল মোড়ে আসার পর তারা যখন আবা‌সিক এলাকার দিকে যাচ্ছিল তখন বা‌সিন্দাদের নিরাপত্তার স্বা‌র্থে আমরা পিছন থেকে বাঁধা দেই। এখান বেশ কয়েকজনকে আটক করা হয়।