মালদ্বীপে অবস্থানরত বাংলাদেশিদের সতর্ক থাকার পরামর্শ

আদালত-সরকার দ্বন্দ্বের জেরে মালদ্বীপে জরুরি অবস্থা জারির পর দেশটির প্রধান বিচারপতি আবদুল্লাহ সাঈদ, সাবেক প্রেসিডেন্টসহ সাতজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বিবিসির সংবাদদাতা অলিভিয়া ল্যাঙ জানিয়েছেন, মালদ্বীপে মানুষ ভীত-শঙ্কিত অবস্থায় আছে। রাত থেকে সুপ্রিম কোর্ট ঘিরে রেখেছে পুলিশ। আদালতে যেসব বিচারপতি ছিলেন তারা সবাই সেখানে আটকে রয়েছেন।

এক প্রতিবেদনে বলা হয়, প্রেসিডেন্ট আব্দুল্লাহ ইয়ামিন সোমবার রাতে দেশে জরুরি অবস্থা জারির ঘোষণা দেওয়ার পর ভোরের দিকে পুলিশ সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণে ঢোকে।সেখান প্রধান বিচারপতি আব্দুল্লাহ সাঈদের সঙ্গে আলী হামীদ নামে আরেকজন বিচারক এবং জুডিশিয়াল সার্ভিস অ্যাডমিনিস্ট্রেটর হাসান সাঈদকে গ্রেপ্তার করা হয়।

মালদ্বীপে জরুরি অবস্থা জারির পর দেশটিতে অবস্থানরত বাংলাদেশিদের সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছে বাংলাদেশি দূতাবাস। এ অবস্থায় যে কোনো সহযোগিতায় সাহায্যের জন্য দূতাবাস হটলাইন +৯৬০৩৩২০৮৫৯-এ যোগাযোগ করার জন্য বলা হয়েছে।

রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে জাতির উদ্দেশে দেয়া ভাষণে প্রেসিডেন্টের সহযোগী ও আইনবিষয়ক মন্ত্রী আজিমা সাকুর জরুরি অবস্থা জারির ঘোষণা দিয়েছেন। তিনি বলেন, সরকার বিশ্বাস করে না যে, রাজবন্দিদের মুক্তি দিতে সুপ্রিমকোর্টের আদেশ বাস্তবায়ন করতে হবে।

এদিকে জরুরি অবস্থা জারির পর সোমবার রাতে মালদ্বীপের সাবেক প্রেসিডেন্ট মামুন আব্দুল গাইয়ুমকে তার নিজ বাসা থেকে গ্রেফতার করেছে দেশটির আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।