বান্দরবানে মাইন বিস্ফোরণে এক ব্যক্তির দু’পা বিচ্ছিন্ন

বান্দরবানে মাইন বিস্ফোরণে বদিউর রহমান (৪৫) নামে এক ব্যক্তির দু’পা বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। শনিবার দুপুরে নাইক্ষ্যংছড়ি মিয়ানমার সীমান্তে এ ঘটনা ঘটে।

প্রশাসন ও স্থানীয়রা জানায়, বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার চাকঢালা মিয়ানমার সীমান্তের ৪২ ও ৪৩ নাম্বার সীমানা পিলারের বন্যাঝিরি এলাকায় পাহাড়ে গরু খোঁজতে গিয়ে শুকনো লাকড়ি সংগ্রহ করার মিয়ানমারের সেনাদের পুতে রাখা মাইন বিস্ফোরণ ঘটে। এসময় বদিউর রহমানের দুই পাঁ অনেকটা বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। খবর পেয়ে স্থানীয় লোকজন বদিউর রহমানকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। পরে অবস্থার অবনতি হলে তাকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়। নাইক্ষ্যংছড়ি সদর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান তসলিম ইকবাল চৌধুরীর জানান, মাইন বিস্ফোরণে আহত ব্যক্তি ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক। সীমান্তের জিরো পয়েন্টে জ্বালানীর লাকড়ি সংগ্রহ করতে গিয়েছিল। মাইন বিস্ফোরণে তার দুই পা বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। সে স্থানীয় বাসিন্দার জাগের হোছেনের পুত্র।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) সরোয়ার কামাল জানান, সীমান্তের মিয়ানমার সীমান্তরক্ষী বাহিনীর পুতে রাখা মাইন বিস্ফোরণে এক বাংলাদেশীর দুই পা বিচ্ছিন্ন হয়েছে। আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে কক্সবাজার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তার শারীরিক অবস্থা ভালো নয় বলে খবর পেয়েছি।

সোহেল কান্তি নাথ, বান্দরবান প্রতিনিধি