জঙ্গি দমনে সফল বাংলাদেশ, আস্থা ফিরেছে বিদেশিদের

গুলশান ও কিশোরগঞ্জে হামলার পর জঙ্গি দমনে আমরা সফল হয়েছি। ফলে আন্তর্জাতিক মহলের কাছে দেশের ভাবমূর্তি ও আস্থা ফিরেছে বলে জানিয়েছেন সদ্য বিদায়ী মহাপুলিশ পরিদর্শক (আইজিপি) একেএম শহীদুল হক। বৃহস্পতিবার বিজিএমইএ’র কনফারেন্স রুমে বিদায়ী আইজিপিকে সংবর্ধনা দেয়ার সময় তিনি এ কথা বলেন।

বিজিএমইএ সংবর্ধনার আয়োজন করে। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিজিএমই ‘র সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান, সংগঠনের প্রথম ভাইস প্রেসিডেন্ট ফারুক হাসান খান, ভাইস প্রেসিডেন্ট (অর্থ) মোহাম্মদ নাছির ও পুলিশের ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি আব্দুল্লাহ আল মামুন প্রমুখ।

বিদায়ী আইজিপি বলেন, হলি আর্টিজান ও শোলাকিয়াসহ জঙ্গি হামলার পর আমাদের চৌকোশ বাহিনী ৪০টির বেশি অভিযান পরিচালনা করে। এতে সফল হয়েছি। জঙ্গিবাদ দমন করেছি। তখন যদি জঙ্গিবাদ দমন করতে না পারতাম তাহলে দেশের মানুষ শান্তিতে থাকতে পারতো না। এখন আস্থা ফিরেছে। আইপিও সম্মেলনসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক কনফারেন্স হয়েছে। অস্ট্রেলিয়াসহ বিভিন্ন দেশের ক্রিকেট দল খেলতে এসেছে। বিদেশি ব্যবসায়ীরা এখন আবারও ফিরে আসছেন। এটাই সফলতা।

তিনি আরও বলেন, মাদক জঙ্গিবাদ একই সূত্রে গাথা। এটি নির্মূল করা কঠিন। তবে নিয়ন্ত্রণ করতে হয়। মাদক নিয়ন্ত্রণে মাদক নিয়ন্ত্রণ অধিদফতর রয়েছে। এরপরও ৯০ শতাংশ মামলা পুলিশ করে থাকে। কিন্তু সাক্ষী ও বিভিন্ন আইনের ফাঁকের কারণে তাদের শাস্তির আওতায় আনা যায় না। আমরা মাদক নিয়ন্ত্রণে সব সময় কাজ করেছি। মাদকে জড়িত থাকার অভিযোগে অনেক পুলিশ সদস্যকেও শাস্তি দিয়েছি।

পোশাক মালিকদের আশ্বাস দিয়ে শহীদুল হক বলেন, আমি আইজিপি থাকা অবস্থায় সব সময় আপনাদের পাশে ছিলাম। এখন যিনি নতুন এসেছেন তিনিও আপনাদের সহযোগিতা করবেন বলে মনে করি। পুলিশের প্রতি পরামর্শ দিয়ে বিদায়ী আইজিপি বলেন, আমি যে কমিউনিটি পুলিশ তৈরি করেছি। আসা করছি এর ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকবে।