হাইকোর্টে সাঁজোয়া যান-জলকামান-প্রিজন ভ্যান

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিশেষ আদালতে হাজিরাকে কেন্দ্র করে হাইকোর্ট এলাকায় বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়েছে পুলিশ। সেখানে আনা হয়েছে পুলিশের সাঁজোয়া যান, জলকামান, প্রিজন ভ্যান। এছাড়া অতিরিক্ত শতাধিক পুলিশ সদস্য মোতায়েন রয়েছে।

পুলিশ জানায়, গতকাল হাইকোর্ট সংলগ্ন মাজার গেটের সামনে পুলিশের প্রিজন ভ্যান ভেঙে তিন নেতাকে ছিনিয়ে নেয় বিএনপি কর্মীরা। এ সময় পুলিশের ওপর হামলার ঘটনাও ঘটে। তাই অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে আজ বুধবার সকাল থেকেই হাইকোর্টের সামনে বাড়তি নিরাপত্তা নেয়া হয়েছে। এদিকে খুব প্রয়োজন এবং পরিচয় নিশ্চিত হওয়ার পরই হাইকোর্টের ভিতরে ঢুকতে দেয়া হচ্ছে হাইকোর্টে আসা লোকজনকে।

রমনা বিভাগের ডিসি মারুফ হোসেন সরদার বলেন, কেউ যেন কোনো ধরনের নাশকতা করতে না পারে, সে কারণে পুলিশ বাড়তি নিরাপত্তা নিয়েছে। অন্যদিক সন্দেহভাজন কমপক্ষে ৩০ জনকে আটক করে শাহবাগ থানায় নেয়া হয়েছে। এদিকে সকালে নয়াপল্টন কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, গতকাল হাইকোর্টের সামনে যে ঘটনা ঘটেছে, তা বিভিন্ন গণমাধ্যমেও এসেছে। আমরা নিজেরাই এ ছেলেদের চিনতে পারছি না। আমরা আশঙ্কা করছি অনুপ্রবেশকারীরা এ ধরনের ঘটনা ঘটিয়েছে।