‘রাজনীতিবিদকে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে যাওয়া সভ্য রাষ্ট্রে নজিরবিহীন’

বাংলাদেশে বিরোধী দল বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা গয়েশ্বর চন্দ্র রায়কে মঙ্গলবার রাতে ঢাকার গুলশান এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মঙ্গলবার জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় আদালতে হাজির হওয়ার পর খালেদা জিয়া বিকেলে বাসায় ফেরার সময় মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে এবং সরকার-বিরোধী শ্লোগান দিয়ে বিএনপির নেতাকর্মীরা কার্জন হলের সামনে রাস্তায় বিক্ষোভ করেন।

গতকাল মঙ্গলবার নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে রাত সাড়ে ১১টায় আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবীর রিজভী অভিযোগ তুলে বলেছেন ‘আমাদের দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী গয়েশ্বর চন্দ্র রায়কে ডিবি পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। একজন রাজনীতিবিদকে এভাবে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে যাওয়ার ঘটনা সভ্য রাষ্ট্রে নজিরবিহীন। এটা একটি সরকারের ভয়ংকর গভীর ষড়যন্ত্রের অংশবিশেষ। আমরা এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি। এখনো আমরা জানি না তিনি কোথায় আছেন, কিভাবে আছেন। আমি দলের পক্ষ থেকে অবিলম্বে গয়েশ্বর চন্দ্র রায়কে তাঁর দল ও পরিবারের কাছে ফেরত দেওয়ার দাবি জানাচ্ছি।’

রিজভী বলেন, ‘আগামী ৮ ফেব্রুয়ারিকে সামনে রেখে সরকার এক অশুভ পরিকল্পনা নিয়ে এগোচ্ছে। গোটা জাতি জানে এক ভয়ংকর মিথ্যাচার ও সাজানো রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মামলা চূড়ান্ত পর্যায়ে নিয়ে এসেছে। সারা দেশের মানুষ এ নিয়ে উদ্বিগ্ন। এ সময়ে গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের মতো একজন রাজনীতিবিদকে গ্রেপ্তার সরকারের ভয়ংকর অশুভ পরিকল্পনার অংশ। সরকারের উদ্দেশে বলতে চাই, এটি আপনাদের শেষ মরণ কামড়। এই মরণ কামড় দিয়ে আপনাদের কোনো লাভ হবে না। আপনাদের সব অপকর্ম, অপচিন্তা এবং অপপরিকল্পনা এ দেশের জনগণ ব্যর্থ করে দেব।’ তিনি বলেন, ‘আপনারা মনে করেছেন, এভাবে গ্রেপ্তার করে দেশের মানুষ ও জাতীয়তাবাদী শক্তি ভয় পেয়ে যাবে, আতঙ্কগ্রস্ত হবে। বরং এই গ্রেপ্তার ও রাস্তা থেকে তাঁকে তুলে নিয়ে যাওয়ার মধ্য দিয়ে গোটা দেশ আরো বেশি ক্ষোভ-বিক্ষোভে ফেটে পড়বে।’ একই সঙ্গে রিজভী বলেন, ‘কিছুক্ষণ আগে খবর পেলাম জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবুর বাসায় পুলিশি তল্লাশি চালাচ্ছে। আমি এহেন তল্লাশির নিন্দা জানাই।’

সংবাদ সম্মেলনে দলের সহসাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ, চেয়ারপারসনের প্রেস উইংয়ের সদস্য শামসুদ্দিন দিদার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে দলের সহদপ্তর সম্পাদক বেলাল আহমেদ স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে গয়েশ্বরের গ্রেপ্তারের ঘটনায় দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, মিথ্যা মামলা দিয়ে বিএনপি নেতাদের অন্যায়ভাবে গ্রেপ্তার করে বিরোধীদল শূন্য রাষ্ট্রব্যবস্থা কায়েম করতে চায় বর্তমান সরকার।

তিনি বলেন, বিএনপিসহ বিরোধী দলগুলোকে ধ্বংস করে নিজেদের একচ্ছত্র আধিপত্য প্রতিষ্ঠা করার জন্যই সরকার একদিকে যেমন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে সপ্তাহের বেশির ভাগ দিন আদালতে হাজিরা দিতে বাধ্য করছে, একইভাবে বিএনপির জাতীয় নেতাদেরসহ দেশব্যাপী প্রতিনিয়ত নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে গ্রেপ্তার করে পথের কাঁটা দূর করতে চাচ্ছে। গয়েশ্বর চন্দ্র রায়কে গ্রেপ্তার সরকারের অশুভ ভবিষ্যতের ইঙ্গিতবাহী।