‘গয়েশ্বরকে গ্রেফতার সরকারের ভয়ংকর পরিকল্পনার পরিচয়’

দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়কে গ্রেফতার করা সরকারের ভয়ংকর পরিকল্পনার একটি অংশ বলে অভিযোগ করেছে বিএনপি। মঙ্গলবার দিবাগত রাত ১২টায় রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক জরুরি সংবাদ সম্মেলনে দলটির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এ অভিযোগ করেন।

সরকার অশুভ পরিকল্পনা নিয়ে এগুচ্ছে মন্তব্য করে রুহুল কবির রিজভী বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার নামে একটি জাল নথি তৈরি করে একটি ভুয়া মামলায় তাকে বারবার আদালতে হাজির করা হচ্ছে। এই হাজির করার মধ্যদিয়ে তাকে যে হয়রানি করা হচ্ছে এবং চূড়ান্ত পর্যায়ে এসে সেই মামলায় কী রায় দেবে, তা নিয়ে গোটা জাতি উদ্বিগ্ন।

‘কারণ গোটা জাতি জানে, একটা ভয়ংকর মিথ্যাচার এবং রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মামলায় বেগম জিয়াকে হয়রানি করে এখন মামলা চূড়ান্ত পর্যায় নিয়ে এসেছে। এর বিরুদ্ধে গণতান্ত্রিক পন্থায় প্রতিরোধ করতে জাতীয়তাবাদী শক্তি প্রস্তুত। এই রকম মুহূর্তে গয়েশ্বর চন্দ্র রায়কে গ্রেফতার করা সরকারের ভয়ংকর পরিকল্পনার একটি অংশ। আর এটি সরকারের শেষ মরণ কামড়। এই মরণ কামড় দিয়ে কোনো লাভ হবে না। আপনার (সরকার) সকল অপকর্ম এদেশের জনগণ ব্যর্থ করে দেবে’ বলেন তিনি।

তিনি বলেন, গয়েশ্বর চন্দ্র রায় একজন জাতীয় নেতা। মন্ত্রিত্ব করেছেন এবং যুবদলের নেতৃত্ব থেকে বিএনপির শীর্ষ পর্যায়ের নেতৃত্ব করেছেন। এ ধরনের একজন জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ নেতাকে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে যাওয়া কোনো সভ্য দেশের লক্ষণ মনে হয়? মনে হতে পারে না। সরকারকে উদ্দেশ্য করে রিজভী বলেন, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়কে গ্রেফতার করে কী ভাবছেন- গোটা দেশ ও জাতীয়তাবাদী শক্তি ভয় পেয়ে যাবে? বরং এর মাধ্যমে দেশের মানুষ প্রতিরোধ করতে ক্ষোভে এবং বিক্ষোভে ফেটে পড়বে।

বিএনপির এই মুখপাত্র বলেন, গয়েশ্বর কি কোনো সন্ত্রাসী ও অপকর্মের সাথে লিপ্ত ছিলেন। তিনি বিএনপির করেন এবং একজন দক্ষ সংগঠক। কিন্তু এই গ্রেফতারের মাধ্যমে কী বার্তা দিলেন। বার্তা দিতে চাইলেন, আমরা যা বলবো, তাই করতে হবে। কিন্তু তা হবে না।

তিনি বলেন, এখন আমরা খবর পেলাম স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবুর বাসায় পুলিশি তল্লাশি চলছে। এর মানে কী? একটা সিন্ডিকেট কাজ চলছে। একটা পরিকল্পনা অনুযাযী সরকারের নীল-নকশার কাজ চলছে। রিজভী গয়েশ্বরের মুক্তি ও শফিউল বারী বাবুর বাসায় তল্লাশি বন্ধ করার আহ্বান জানান এবং অবিলম্বে গয়েশ্বরকে তার পরিবার ও দলের কাছে ফেরত দিতেও পুলিশের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।