‘ধর্মীয় উস্কানিমূলক বই প্রকাশ করলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে’

আজ মঙ্গলবার বইমেলার নিরাপত্তা ব্যবস্থা পরিদর্শনের পর এক সংবাদ সম্মেলনে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার আছাদুজ্জামান ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করে এ ধরনের বই মেলায় না আনার অনুরোধ জানিয়েছেন।

ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া বলেছেন, ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করে এমন বই মেলায় না আনার অনুরোধ করছি। যদি কেউ এমন বই আনে তাহলে বাংলা একাডেমির গঠিত কমিটি এবং ডিএমপির সদস্যরা এগুলো শনাক্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেবে। এ ছাড়াও গোয়েন্দা পুলিশের সদস্যরা বইগুলো শনাক্তে নজরদারি করবে।

তিনি বলেন, প্রবেশ গেটে আর্চওয়ে লাগানো হবে। এ ছাড়াও পুলিশের সদস্যরা মেটাল ডিটেক্টর দিয়ে আগতদের তল্লাশি করবে। নিরাপত্তার স্বার্থে মেলায় আগতদের ভ্যানেটি ব্যাগ, ব্যাকপ্যাক, ধারালো অস্ত্র এবং দাহ্য পদার্থ নিয়ে আসা যাবে না।

একুশে বইমেলার নিরাপত্তার বিষয়ে কমিশনার বলেন, মেলাকে কেন্দ্র করে বাংলা একাডেমি ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। মেলার ভেতর ও চারপাশে সিসিটিভি ক্যামেরা লাগানো হয়েছে। মেলায় প্রবেশ ও বাহিরে আলাদা গেট থাকবে যাতে দর্শনার্থী বের হওয়ার সময় শ্লীলতাহানি কিংবা ধাক্কাধাক্কির ঘটনা না ঘটে।