বরাবরের মতো সিলেট থেকেই নির্বাচনী প্রচার শুরু করবেন শেখ হাসিনা

বরাবরের মতো এবারও সিলেট থেকে জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রচারকাজ শুরু করবেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা। এজন্য আগামীকাল মঙ্গলবার সিলেট যাচ্ছেন তিনি। সিলেট সরকারি আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে জনসভায় দলীয় প্রার্থীদের পক্ষে নৌকা প্রতীকে ভোট চাইবেন শেখ হাসিনা। বছরের শুরুতে প্রধানমন্ত্রীর এই সফর আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিজয়ধারা অব্যাহত রাখতে বড়ধরনের প্রভাব ফেলবে বলেও মনে করছেন দলের নেতারা।

এ বছরের এপ্রিল নাগাদ সিলেটসহ দেশের পাঁচ সিটি করপোরেশন ও বছরের শেষ নাগাদ অনুষ্ঠিত হবে জাতীয় সংসদ নির্বাচন। এ নির্বাচন দুটিকে সামনে রেখে আগাম প্রচারে নামছেন শেখ হাসিনা। রাজনীতির জন্য গুরুত্বপূর্ণ এই বছরের শুরুতেই সিলেট সফরে যাচ্ছেন তিনি। দলীয়প্রধানের এই সফরকে ঘিরে উজ্জীবিত আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা। শেখ হাসিনার জনসভা সফলে চালিয়ে যাচ্ছেন প্রস্তুতি সভা-সমাবেশ।

আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে রেকর্ডসংখ্যক জনসমাগমের মাধ্যমে জনসভাকে জনসমুদ্রে পরিণত করতে দলের নেতাকর্মীরা বিরামহীন প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন বলে জানান আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন। তিনি জানান, প্রধানমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে বর্ণিল সাজে সেজেছে সিলেট। পুরো শহর ছেয়ে গেছে ব্যানার, পোস্টার, ফেস্টুন, বিলবোর্ড আর তোরণে। জনসভাকে জনসমুদ্রে পরিণত করতে ইতোমধ্যে প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে।

আহমদ হোসেন বলেন, বিগত নির্বাচনে সিলেটের ১৯টি আসনের মধ্যে ১৫টিতে জয়লাভ করে আওয়ামী লীগ আর চারটি আসন পায় জাতীয় পার্টি। আগামী নির্বচনেরও এ ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে চায় আওয়ামী লীগ। এজন্য প্রধানমন্ত্রীর সফরকে বেশ গুরুত্বপূর্ণ। এবারও সবকটি আসন আওয়ামী লীগ পাবে বলে আশাবাদী আহমদ হোসেন। দ্বিতীয় মেয়াদে সরকার গঠনের পর সিলেটে প্রধানমন্ত্রীর আনুষ্ঠানিকভাবে এটি তৃতীয় সফর।

সিলেটের জেলা প্রশাসক রাহাত আনোয়ার জানান, প্রধানমন্ত্রীর এবারের সিলেট সফরসূচিতে হজরত শাহজালাল (রহ.), হজরত শাহপরান (রহ.) ও হজরত গাজী বোরহান উদ্দিন (রহ.) এর মাজার জিয়ারতের পাশাপাশি থাকছে বেশ কিছু উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন।

সফরসূচি অনুযায়ী বেলা ১১টা থেকে দুপুর সোয়া ১২টা পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রীর এই তিন মাজার জিয়ারত করবেন। দুপুর সাড়ে ১২টা থেকে দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত সিলেট সার্কিট হাউজে নামাজ ও মধ্যাহ্ন বিরতি শেষে দুপুর ২টা ৪০ মিনিটে সিলেট সরকারি আলিয়া মাদ্রাসা মাঠের জনসভাস্থলে উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন। বিকাল ৩টায় একই মাঠে আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় যোগ দেবেন প্রধানমন্ত্রী।

আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ জানান, উন্নয়ন কর্মকাণ্ড নেতাকর্মীদের উৎসাহে বাড়তি মাত্রা যোগ করেছে। কেবল নেতাকর্মীই নন, প্রধানমন্ত্রীর সফরকে ঘিরে সাধারণ লোকজনেরও আগ্রহের কমতি নেই। প্রধানমন্ত্রীর সফরের মাধ্যমে সিলেট অঞ্চলে দল আরও শক্তিশালী হবে বচলে মনে করেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী ২০টি প্রকল্পের উদ্বোধন ও ১৮টি প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন বলে জানান এই নেতা।

প্রধানমন্ত্রীর এবারের সফরসূচিতে উদ্বোধনের তালিকায় রয়েছে, হজরত গাজী বোরহান উদ্দিন (রহ.) এর মাজার উন্নয়ন, মহিলা এবাদতখানা নির্মাণ, মাজারের সৌন্দর্য বর্ধন এবং মাজারের যাতায়াতের প্রধান রাস্তা দুই কিলোমিটার প্রশস্তকরণ ও উন্নয়ন, সিলেট সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের ছয় তলা বিশিষ্ট নতুন একাডেমিক ও প্রশাসনিক ভবন, পিরোজপুরে সার পরীক্ষাগার ও গবেষণাগার ভবন, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের জেলা অফিস, সিলেট বিভাগীয় ও জেলা এনএসআই কার্যালয় ভবন, সিলেট মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবন, জকিগঞ্জ উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবন, সিলেট সিটি করপোরেশনের ১২ তলা ভিত বিশিষ্ট পাঁচ তলা ভবন, নগরীর বাবুছড়ার আরসিসি ইউ টাইপ ড্রেন নির্মাণ কাজ, জালালাবাদ রাস্তা সম্প্রসারণ ও উন্নয়ন কাজ, সিলেট-সুনামগঞ্জ বাইপাস সড়ক উন্নয়ন, মৌলভীবাজার-রাজনগর-ফেঞ্চুগঞ্জ- সিলেট সড়ক, রশিদপুর-বিশ্বনাথ-লামাকাজী সড়কের কাজ, সিলেট- গোলাপগঞ্জ-চারখাই-জকিগঞ্জ সড়ক, দরবস্ত-কানাইঘাট-শাহবাগ সড়কের মজবুতিকরণসহ ওভারলে এর কাজ, ঢাকা (কাঁচপুর)-ভৈরব-জগদীশপুর- শায়েস্তাগঞ্জ-সিলেট-তামাবিল-জাফলং সড়কের (সিলেট-শেরপুর অংশ) মজবুতিকরণসহ ওভারলে এর কাজ, শেরপুর টোল প্লাজার উন্নয়ন কাজ, জকিগঞ্জ উপজেলার সুলতানপুর ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স, কানাইঘাট সড়ক ও তিনতলা বিশিষ্ট প্রাইমারি হেলথ কেয়ার সেন্টার ভবন।

ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের তালিকায় রয়েছে, হজরত শাহজালাল (রহ) মহিলা ইবাদতখানা ও অন্যান্য উন্নয়ন কার্যক্রম, শাহজালাল বিজ্ঞান প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে বেগম ফজিলাতুন্নেসা হল নির্মাণ, গোয়াইনঘাট উপজেলা পরিষদ ভবন ও হলরুম নির্মাণ, সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজের ছাত্র হোস্টেল ভবন নির্মাণ, সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজের ছাত্রী হোস্টেল ভবন নির্মাণ, সিলেটে ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেলা হাসপাতাল নির্মাণ, সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেলের অভ্যন্তরে নার্সিং হোস্টেল ভবন নির্মাণ, সিলেট পুলিশ লাইনে এসএমপির ব্যারাক নির্মাণ, সিলেট পুলিশ লাইনে অস্ত্রাগার নির্মাণ, এসএমপির কোতোয়ালী মডেল থানার কম্পাউন্ডে ডরমেটোরি ভবন নির্মাণ, তামাবিল ইমিগ্রেশন চেকপোস্ট ভবন নির্মাণ, সিলেটের লালাবাজারে রেঞ্জ রিজার্ভ পুলিশ লাইনস নির্মাণ, দৃষ্টি প্রতিবন্ধী শিশুদের জন্য হোস্টেল নির্মাণ ও সম্প্রসারণ, বিশ্বনাথ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সকে ৩১ শয্যা থেকে ৫০ শয্যায় উন্নতকরণ, বিভাগীয় পরিচালক (পরিবার পরিকল্পনা) ও জেলা পরিবার পরিকল্পনা সিলেটের অফিস ভবন নির্মাণ, সিলেট-গোলাপগঞ্জ-চারখাই-জকিগব্জ মহাসড়কের ৬৫ কিলোমিটার উন্নয়ন, গোলাপগঞ্জ-ঢাকাদক্ষিণ-ভাদেশ্বর মহাসড়ক ও চারখাই-শেওলা-বিয়ানীবাজার-বাড়ইগ্রাম মহাসড়কের ৯ দশমিক ৬০ কিলোমিটার উন্নয়ন, সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল হাসপাতাল ভবনের চতুর্থ তলা হতে ১০ তলা উর্ধ্বমুখী সম্প্রসারণ।

এদিকে প্রধানমন্ত্রীর সিলেট সফরকে সামনে রেখে ব্যাপক নিরাপত্তাব্যবস্থা গ্রহণ করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। সিলেট মহানগর পুলিশের কমিশনার গোলাম কিবরিয়া জানান, প্রধানমন্ত্রীর সফরকে ঘিরে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।