‘আরও এক বার সুযোগ দেয়া হোক আমাকে’

গত কয়েকদিন ধরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফেসবুকে একটি ভয়াবহ ভিডিও ঘুরে বেড়াচ্ছে। ভিডিওতে এক বাবা তার ছেলেকে নির্মমভাবে শাসন করতে দেখা যাচ্ছে। ছেলেটি তার বাবাকে বলছে, ‘আর মিথ্যা কথা বলব না…আর কখনও বলব না। আমাকে আরও এক বার সুযোগ দাও।’

এভাবেই বাবার কাছে কাকুতি-মিনতি করে যাচ্ছিল বছর দশেকের ছেলেটি। না বাবা তাকে মাপ করে দেননি। শাস্তি দিয়েছিলেন। কিন্তু শাস্তির যে নিদর্শন তিনি রাখলেন তা শুনলে শিউরে উঠতে হবে। ভারতের কর্ণাটক রাজ্যের বেঙ্গালুরুর একটি পরিবারের ঘটনা।

পুলিশ জানিয়েছে, মাস দুয়েক আগের ঘটনা এটি। সেই ঘটনার ভিডিওটিই সামনে এসেছে সম্প্রতি। গোটা ঘটনাটি ক্যামেরাবন্দি করেছিলেন ছেলেটির মা। দোকানে ফোন সারাতে দিয়েছিলেন তিনি। সেখান থেকেই ভিডিও ক্লিপটি উদ্ধার করেন দোকানদার। তিনি বিষয়টি একটি এনজিও-কে জানান। তারা পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। গোটা বিষয়টি খতিয়ে দেখার পর পুলিশ ওই ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করে। বেঙ্গালুরু পশ্চিম অঞ্চলের উপপুলিশ কমিশনা এম এন আনুচায়িথ জানান, জুভেনাইল জাস্টিস অ্যাক্ট অনুযায়ী ভিকটিমের বাবাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এই ঘটনার তদন্ত চলছে।

ছেলে মিথ্যা কথা বলায় নাকি মেনে নিতে পারেননি বাবা। শুরু হয় মারধর। প্রথমে বেল্ট দিয়ে বেশ কয়েক ঘা বসিয়ে দেন পিঠে। এখানেই থেমে থাকেননি। ছেলেকে শূন্যে তুলে বিছানার ওপর বেশ কয়েক বার আছড়ে ফেলেন। তারপর পা ধরে টেনে ছুড়ে ফেলে দেন মেঝেতে। ছেলেটি যন্ত্রণায় চিৎকার করতে থাকে। কিন্তু সেই আর্তনাদ যেন ওই ব্যক্তির কানেই পৌঁছচ্ছিল না! মেঝে থেকে তুলে ফের সপাটে কয়েকটা চড় মারেন। তার পর লাথি, কিল, ঘুষি কোনওটাই বাদ যায়নি।

ভিডিওতে শোনা গিয়েছে ওই ব্যক্তি ছেলেটিকে বলছে, ‘কত বার বলেছিলাম মিথ্যা কথা না বলতে? কাঁদতে কাঁদতে ছেলেটিকে উত্তর দিতেও শোনা যায়— ‘অনেক বার’। ভুল স্বীকার করেও নিস্তার পায়নি ছেলেটি। মার খেতে খেতেও তাকে বলতে শোনা যায়, ‘আরও এক বার সুযোগ দেয়া হোক আমাকে।’ কিন্তু সেই মিনতিতেও মন গলেনি ওই ব্যক্তির।

https://youtu.be/OWku29GMUe8