ভিডিও কনফারেন্সে শিশুর ‘সাক্ষাৎকার’ নিলেন প্রধানমন্ত্রী

পার্বত্য এলাকায় বিভিন্ন নাগরিক সেবা দিতে পাড়াকেন্দ্রের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ঢাকা থেকে বসে রাঙ্গামাটির এক শিশুর সঙ্গে কথা বললেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শিশুটিকে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলতে দেয়া হলে সে সংকোচে কথা বলতে পারছিল না। পরে প্রধানমন্ত্রী নানা প্রশ্ন করেন তাকে, তার কাছ থেকে গানও শোনেন।

রবিবার পার্বত্য এলাকায় চার হাজারতম পাড়াকেন্দ্রের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী। এ জন্য ভিডিও কনফারেন্সে তিন পার্বত্য জেলায় জড়ো হন স্থানীয় প্রশাসন এবং জনতা। ছিল বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ। এই ধরনের ভিডিও কনফারেন্সে বরাবর বক্তব্য দেয়ার পর প্রধানমন্ত্রী স্থানীয় জনগণ বা উপকারভোগীদের সঙ্গে কথা বলেন। আজও তার ব্যতিক্রম হয়নি।

প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের পর প্রাথমিকের একটি শিশুকে কথা বলতে দেয়া হয় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে। কিন্তু সালাম দেয়ার পর শিশুটি ‘আপনি কেমন আছেন?’ বলার পর আর কিছু বলতে পারছিল না। এ সময় মাইক হাতে দাঁড়িয়ে থাকা শিশুটিকে স্বাভাবিক করার উদ্যোগ নেন প্রধানমন্ত্রী।

‘আমি ভালো’ এই বলে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আপনি কেমন আছেন?’

‘ভালো’-জবাব দেয় শিশুটি।

প্রধানমন্ত্রী: ‘ও আচ্ছা, তো আপনার কেমন লাগছে?’

শিশু: ‘ভালো’

প্রধানমন্ত্রী: ‘আপনি পাড়া কেন্দ্র যান?’

শিশু: ‘হ্যাঁ’

প্রধানমন্ত্রী: ‘যান আপনি?’

শিশু: ‘হ্যাঁ’

প্রধানমন্ত্রী: ‘ওখানে কী করেন আপনি?’

শিশু: ‘আমি খেলি’।

প্রধানমন্ত্রী: ‘আপনি গান গাইতে পারেন?’

কথা না বলে মাথা ঝাঁকিয়ে শিশুটি জানায় সে গান পারে।

প্রধানমন্ত্রী: ‘তো একটু গান করেন…’

‘গান গাবে? গান গাও…’

এরপর একজন নারী এসে শিশুটিকে বলেন, ‘আমরা করব জয়, এটা বলো..’।

এরপর শিশুটি গানটি গেয়ে শোনান।

এরপর শিশুটি তার মাতৃভাষায় একটি গান গেয়ে শোনায় …

এরপর প্রধানমন্ত্রীকে শিশুটি বলে, ‘ভালোবাসি’।

প্রধানমন্ত্রী জবাবে বলেন, ‘হ্যাঁ ভালোবাসি, তোমাকেও আমরা ভালোবাসি।’

এ সময় শিশুটিকে তুমুল করতালি দিয়ে উৎসাহিত করে সেখানে উপস্থিত জনতা।

এরপর প্রধানমন্ত্রী পাড়া কেন্দ্রের আরও কয়েকজন উপকারভোগী এবং স্থানীয় জনপ্রতিনিধির সঙ্গে কথা বলেন। তারা স্থানীয় নানা দাবি তুলে ধরেন। প্রধানমন্ত্রীও পার্বত্য এলাকার উন্নয়নে নেয়া নানা পদক্ষেপ, ১৯৯৭ সালে করা চুক্তি বাস্তবায়ন কোন পর্যায়ে আছে তার বর্ণনা দেন। সেই সঙ্গে চুক্তির অবাস্তবায়িত ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তিতে সরাকরের উদ্যোগও বর্ণনা দেন। বলেন, এই বিরোধ আর থাকবে না।