ফরিদপুরে দু’দল গ্রামবাসীর রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে আহত ২৫

ফরিদপুরের সালথায় দু’দল গ্রামবাসির মধ্যে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে উভয় গ্রুপের কমপক্ষে ২৫ ব্যক্তি আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। আহতদের নগরকান্দা উপজেলা হাসপাতাল ও ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

জানা গেছে, উপজেলার গট্টি ইউনিয়নের জয়ঝাপ গ্রামের মানিক মাতুব্বর ও বিল্লাল মোল্যার গ্রুপের মধ্যে তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে এ সংঘর্ষ বাঁধে। বৃহস্পতিবার সকালে দু’গ্রুপের মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে উভয় গ্রুপই দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। সংবাদ পেয়ে সালথা থানা পুলিশ উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। এ সংঘর্ষে উভয় গ্রুপের মহিলাসহ কমপক্ষে ২৫ ব্যক্তি আহত হয়েছে। আহতদের নগরকান্দা উপজেলা হাসপাতাল ও ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহতদের মধ্যে শিল্পী বেগম (১৬) অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানা গেছে।

মানিক মাতুব্বর অভিযোগ করে বলেন, বিল্লাল মোল্যার ভাই মোশারফ হোসেন আমাদের ওয়ার্ডের বর্তমান মেম্বর। এ ওয়ার্ডে সরকারীভাবে ২২ টি কম্বল এসেছে। মেম্বর দুস্থ্যদের মাঝে বন্টন না করে নিজের লোকদের মধ্যে বন্টন করেছে। এ ব্যাপারে আমার সমর্থক সলেমান মেম্বারকে জিজ্ঞাসা করলে মেম্বার ও তাঁর সমর্থকেরা তাকে মারপিট করে। ইউপি সদস্য মোশারফ হোসেন অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, কম্বল বিতরণে কোন সমস্যা হয়নি। মুলত মানিক মাতুব্বর ও তার সমর্থকদের পূর্ব পরিকল্পনায় দেশীয় অস্ত্র নিয়ে আমাদের লোকজনের উপর হামলা চালায়। আমরা প্রতিহত করতে গেলে সংঘর্ষ শুরু হয়।

সালথা থানা অফিসার ইনচার্জ দেলোয়ার হোসেন খাঁন বলেন, সংবাদ পেয়ে পুলিশ উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। বর্তমানে এলাকার পরিবেশ শান্ত রয়েছে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

হারুন-অর-রশীদ, ফরিদপুর প্রতিনিধি