‘নিরাপদ বাংলাদেশ গঠনে যা করা দরকার আমরা তাই করব’

আইজিপি একেএম শহীদুল হক বিপিএম-পিপিএম বলেছেন, জঙ্গিরা বড় ধরনের কোনো নাশকতা করবে এ শক্তি তাদের নেই। জঙ্গি এখনো শতভাগ নির্মূল হয়নি। আমরা তাদের খুঁজে বের করে কঠোর হস্তে দমন করছি। নিরাপদ বাংলাদেশ গঠনে যা করা দরকার আমরা তাই করব। পুলিশের সক্ষমতা আগের চেয়ে অনেক বেড়েছে। জনগণ হচ্ছে দেশের মালিক। তাদের সেবা প্রদানে কাজ করছে পুলিশ। জনগণ সহযোগিতা করলে পুলিশ এগিয়ে যাবে। পুলিশ এগিয়ে গেলে বাংলাদেশ এগিয়ে যাবে।

আজ বুধবার দুপুরে মুক্তিযুদ্ধে প্রথম প্রহরের প্রতিরোধে শহীদ পুলিশ সুপার মুন্সী কবির উদ্দিনের নামে নির্মিত পুলিশ লাইন্সের প্রধান ফটকের উদ্বোধনকালে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে আইজিপি এসব কথা বলেন। এসময় অন্যান্যের মধ্যে ছিলেন পুলিশের চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি ড. এস.এম মনির-উজ-জামান বিপিএম-পিপিএম, হাইওয়ে কুমিল্লা অঞ্চলের পুলিশ সুপার পরিতোষ ঘোষ, কুমিল্লা পুলিশ সুপার মো. শাহ আবিদ হোসেন বিপিএমসহ পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা এবং বিভিন্ন জেলার পুলিশ সুপারসহ পদস্থ কর্মকর্তারা।

এর আগে আইজিপি জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ে ওয়ান স্টপ সার্ভিস সেন্টারের উদ্বোধন করেন। পরে তিনি পুলিশ লাইন্সে বার্ষিক পুলিশ সমাবেশ ও ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেন। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন পুনাক সভানেত্রী ও আইজিপি পত্নী মিসেস্ শামসুন্নাহার রহমান। এসময় শহীদ আরআই এবিএম আবদুল হালিমের নামে মিলনায়তনের উদ্বোধন করা হয়। এদিকে আইজিপির আগমনকে কেন্দ্র করে নগরজুড়ে নেয়া হয় নিরাপত্তা ব্যবস্থা। বর্ণিল সাজে সাজানো হয় অনুষ্ঠানস্থল। অনুষ্ঠানে পুলিশের বিভিন্ন কার্যক্রম তুলে ধরা হয়।

পরে পুলিশ লাইন্সে বিভিন্ন শিল্পীদের অংশগ্রহণে পরিবেশন করা হয় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। পুলিশ বিভাগের সদস্য ছাড়াও বিভিন্ন শ্রেণি পেশার লোকজনের অংশগ্রহণে বার্ষিক পুলিশ সমাবেশ, ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উৎসবমুখর হয়ে ওঠে।