‘তাবিথের পুরো পরিবার অর্থপাচারে জড়িত’

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে মেয়র পদে উনির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী তাবিথ আউয়ালের প্রতি প্রথম আক্রমণটি এলো আওয়ামী লীগ নেতা হাছান মাহমুদের তরফ থেকে। আর বিদেশে অর্থপাচারের বিষয়ে পেরাডাইস পেপারস কেলেঙ্কারিতে তাবিথের নাম থাকার বিষয়টি নিয়েই তার সমালোচনা করেন হাছান। মঙ্গলবার দুপুরের ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে ‘আওয়ামী মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম লীগ’ আয়োজিত এক আলোচনায় তাবিথের পুরো পরিবার অর্থপাচারে জড়িত বলে অভিযোগ করেন হাছান।

২০১৭ সালের শেষ দিকে ফাঁস হওয়া প্যারাডাইস পেপারস নামে পরিচিত কর কেলেঙ্কারিকে তাবিথের নাম আছে। তার মা নাসরিন ফাতিমা আউয়াল এবং দুই ভাই তাফসির আউয়াল ও তাজওয়ার মোহাম্মদ আউয়াল এবং তাজওয়ারের অভিভাবক হিসেবে নাম আছে বাবা বিএনপি নেতা আবদুল আউয়াল মিণ্টুরও।

গ্যাস অনুসন্ধান ও ড্রিলিং কোম্পানি এনএফএম এনার্জি লিমিটেডের শেয়ারহোল্ডার হিসেবে প্যারাডাইস পেপারসে এদের নাম ও ঠিকানা উল্লেখ করা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, কানাডাসহ বিশ্বের প্রায় ১৮০ টি দেশের ধনাঢ্য ব্যবসায়ী, রাজনীতিবিদের নাম আছে প্যারাডাইস পেপারসে। নিজ দেশে কর ফাঁকি দেয়ার জন্য, কর দিতে হয় না বা দিলেও খুবই স্বল্প হারে দিতে হয় এমন দেশে (ট্যাক্স হ্যাভেন) নিজেদের বিনিয়োগ করে রেখেছেন এরা।

বাংলাদেশ থেকে বিদেশে অনুমতি ছাড়া বিদেশে বিনিয়োগের সুযোগ নেই। অর্খাৎ মিণ্টু পরিবার অর্থ পাচার করে এই বিনিয়োগ করেছে। তাবিথ বিএনপির মনোনয়ন পেলে এই বিষয়টি সামনে আসবে, এটি ছিল অনুমেয়ই। আর আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাছান মাহমুদ এই বিষয়টি উল্লেখ করেই তাবিথের পরিবারকে দুর্নীতিবাজ বললেন।

আওয়ামী লীগ নেতা বলেন, ‘বিএনপির পক্ষ থেকে ডিএনসিসিতে দলীয় মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে। মানুষে বলে- রতনে রতন চিনে, মানিকে চিনে মানিক…। বেগম খালেদা জিয়ার পরিবার আপাদমস্তক দুর্নীতিবাজ। … তেমনই একজন দুর্নীতিবাজ পরিবারের সদস্যকে বেছে নিয়েছেন সিটি নির্বাচনে প্রার্থী হিসেবে।’ ‘শুধু তাবিদ আউয়ালের নাম নয় তার বাবা মায়ের নাম পর্যন্ত এসেছে পানামা পেপারসে। তারা বাংলাদেশ থেকে অর্থপাচারকারী।’

হাছান মাহমুদ বলেন, ‘খালেদা জিয়া যেমন অর্থ পাচারকারী তেমনই তার প্রার্থী এবং তার বাবা মাও অর্থ প্রচারকারী। বিএনপিতে অনেক প্রার্থী ছিল যারা মনোনয়ন চেয়েছিলেন। তাদের কাউকে না দিয়ে একজন অর্থ প্রচারকারীকে কেন বেছে নিল?’। ‘নিশ্চয় এই অর্থ প্রচারের সাথে খালেদা জিয়ার সম্পর্ক আছে। সেই কারণেই তিনি এ ধরনের প্রার্থী বেছে নিয়েছেন। তাই ঢাকার মানুষ এই দুর্নীতিগ্রস্ত প্রার্থীকে ভোট দেবে না।’

হাছান বলেন, ‘শেখ হাসিনার নেতৃত্ব নয় বছরে বাংলাদেশ বদলে গেছে। বাংলাদেশ এখন ৩৮ তম অর্থনীতির দেশ। বাংলাদেশের বদলে যাওয়াকে সারা বিশ্বের মানুষ প্রশংসা করলেও শুধু বিএনপি প্রশংসা করতে পারছে না।’ বিএনপি আবার এক এগারোর মতো সরকার চায় মন্তব্য করে আওয়ামী লীগের মুখপাত্র বলেন, ‘খালেদা জিয়া চান ঘোলা পানিতে মাছ ধরতে। কিন্তু অতীতের মত আর কোনোদিন এই রকম হবে না।’

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি আসাদুজ্জামান দূর্জয়ের সভাপতিত্বে আলোচনায় আরও উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সহসভাপতি নুরুল আমিন রুহুল।