ডিএমপিতে সেরা হলেন যাঁরা

ডিএমপি হেডকোয়ার্টার্সের ২০১৭ সালের ডিসেম্বর মাসের অপরাধ পর্যালোচনা সভায় ভালো কাজের স্বীকৃতি হিসেবে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে বিজয়ীদের নগদ অর্থ পুরস্কার দেয়া হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল ১০টায় বিজয়ীদের হাতে এ পুরস্কার তুলে দেন ডিএমপি’র কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া বিপিএম (বার), পিপিএম।

ডিসেম্বর মাসে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের শ্রেষ্ঠ বিভাগ নির্বাচিত হয়েছে তেজগাঁও বিভাগ। শ্রেষ্ঠ সহকারী পুলিশ কমিশনার এবিএম জাকির হোসেন (সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার, পল্লবী জোন), শ্রেষ্ঠ পুলিশ পরিদর্শক (অফিসার ইনচার্জ) মো. আবুল হাসান (শাহবাগ মডেল থানা), শ্রেষ্ঠ পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. সাজু মিঞা (কদমতলী থানা), শ্রেষ্ঠ পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশনস্) মো. মাহমুদুর রহমান (মিরপুর মডেল থানা), শ্রেষ্ঠ এসআই যৌথভাবে এসআই বজলুর রহমান (লালবাগ ফাঁড়ি) ও মো. ফরিদ উদ্দিন (তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানা), শ্রেষ্ঠ এএসআই যৌথভাবে এএসআই মো. হেলাল উদ্দিন (মতিঝিল থানা) ও এএসআই মো. আব্দুল্লাহ আল মামুন (মিরপুর মডেল থানা)।

এছাড়া শ্রেষ্ঠ ওয়ারেন্ট তামিলকারী অফিসার মো. এনামুল হোসেন (মিরপুর মডেল থানা), শ্রেষ্ঠ অস্ত্র উদ্ধারকারী অফিসার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. রাশেদুজ্জামান (তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানা), শ্রেষ্ঠ বিস্ফোরক উদ্ধারকারী অফিসার সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার বদরুল হাসান (কোতয়ালী জোন লালবাগ বিভাগ), শ্রেষ্ঠ মাদকদ্রব্য উদ্ধারকারী অফিসার পুলিশ পরিদর্শক অপারেশন মো. মাহমুদুর রহমান (মিরপুর মডেল থানা) এবং শ্রেষ্ঠ চোরাই গাড়ি উদ্ধারকারী অফিসার এসআই মো. তোফাজ্জল হোসেন (শেরে বাংলা নগর থানা)।

গোয়েন্দা ও অপরাধ তথ্য বিভাগের শ্রেষ্ঠ বিভাগ হয়েছে ডিবি-পশ্চিম বিভাগ। শ্রেষ্ঠ সহকারী পুলিশ কমিশনার হয়েছেন সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার নাজমুল হাসান ফিরোজ পিপিএম ডেমরা জোনাল টিম ডিবি পূর্ব, চোরাই গাড়ি উদ্ধারে শ্রেষ্ঠ হয়েছেন সহকারী পুলিশ কমিশনার মো. রফিকুল আলম (গাড়ি চুরি উদ্ধার ও প্রতিরোধ টিম ডিবি দক্ষিণ), মাদকদ্রব্য উদ্ধারে শ্রেষ্ঠ হয়েছেন সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার নাজমুল হাসান ফিরোজ পিপিএম (ডেমরা জোনাল টিম ডিবি পূর্ব)।

অস্ত্র উদ্ধারে শ্রেষ্ঠ হয়েছেন সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার মাহমুদ নাসের জনি (অস্ত্র উদ্ধার ও প্রতিরোধ টিম ডিবি পশ্চিম), জঙ্গি গ্রেফতারে শ্রেষ্ঠ হয়েছেন সহকারী পুলিশ কমিশনার মো. ফজলুর রহমান বিপিএম, পিপিএম (ধানমন্ডি জোনাল টিম ডিবি-দক্ষিণ), অজ্ঞান ও মলম পার্টি গ্রেফতারে শ্রেষ্ঠ হয়েছেন সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার মো. নুরুল আমিন (শুটিং ইনসিডেন্ট ইনভেস্টিগেশন টিম)।

ট্রাফিকের শ্রেষ্ঠ বিভাগ নির্বাচিত হয়েছে ট্রাফিক-উত্তর বিভাগ। শ্রেষ্ঠ সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার এসএম মুক্তারুজ্জামান, রামপুরা ট্রাফিক জোন, শ্রেষ্ঠ ট্রাফিক ইন্সপেক্টর- মো. মনির হোসেন রামপুরা ট্রাফিক জোন, শ্রেষ্ঠ টিএসআই/সার্জেন্ট যৌথভাবে হয়েছেন সার্জেন্ট মো. মাজেদুল হক, ট্রাফিক দক্ষিণ বিভাগ ও টিএসআই মো. জাকির হোসেন রামপুরা ট্রাফিক জোন।

ট্রাফিক সচেতনতামূলক কর্মসূচির জন্য যৌথভাবে পুরস্কৃত হয়েছেন ট্রাফিক ওয়ারীর অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার মো. সায়েদুল ইসলাম পিপিএম ও ট্রাফিক নিউমার্কেট জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার মো. আনিচ উদ্দীন। বিট পুলিশিং কার্যক্রমে পুরস্কৃত হয়েছেন রমনা জোনের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার এইচ এম আজিমুল হক, ওয়ারী জোনের সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার মো. সোহেল রানা, কামরাঙ্গীরচর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. শাহীন ফকির বিপিএম, গেন্ডারিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ কাজী মিজানুর রহমান পিপিএম ও যাত্রাবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ আনিছুর রহমান।

বিশেষ পুরস্কারে পুরস্কৃতরা হলেন- হত্যা মামলার রহস্য উদঘাটনে সম্মিলিতভাবে অতিরিক্তি উপ-পুলিশ কমিশনার মো. জাহিদুল হক তালুকদার পিপিএম কাউন্টার টেরোরিজম, ডেমরা জোনের সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার ইফতেখায়রুল ইসলাম পিপিএম, পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. সাজু মিঞা কদমতলী থানা, পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. সেন্টু মিয়া তেজগাঁও থানা ও রমনা মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. আলী হোসেন।

ছিনতাইকারী গ্রেফতারে সম্মিলিতভাবে পুরস্কৃত হয়েছেন পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. রাশেদুজ্জামান তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানা, পুলিশ পরিদর্শক (শহর ও যানবাহন) বিপ্লব ভৌমিক রামপুরা ট্রাফিক জোন, এসআই বিল্লাল আল আজাদ যাত্রাবাড়ী থানা, এসআই তাপস মন্ডল যাত্রাবাড়ী থানা, এসআই নাজমুল হুদা ভাটারা থানা, সার্জেন্ট অপূর্ব কুমার পাল আইএডি বিভাগ ও এএসআই মো. আবু বক্কর সিদ্দিক শাহবাগ ট্রাফিক জোন।

অপহৃত শিশু ও ভিকটিম উদ্ধারে যৌথভাবে পুরস্কৃত হয়েছেন সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার মো. গোলাম সাকলায়েন ক্যান্টনমেন্ট জোনাল টিম ও এসআই শাহানারা বেগম কামরাঙ্গীরচর থানা। অস্ত্র ও মাদক উদ্ধারে সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনা নাদিয়া জুঁই খিলগাঁও জোন, চুরি যাওয়া টাকা উদ্ধারে সহকারী পুলিশ কমিশনার মো. নুরুল আমিন শুটিং ইনসিডেন্ট ইনভেস্টিগেশন টিম। ডাকাতি মামলার রহস্য উদঘাটন ও আসামী গ্রেফতারে পুলিশ পরিদর্শক অপারেশন গেন্ডারিয়া থানা খন্দকার মোহাম্মদ হেলাল উদ্দিন, ভিকটিমের পরিচয় সনাক্তকরণে পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. এজাজ শফী বিমানবন্দর থানা, নব্য জিএমবি গ্রেফতারে পুলিশ পরিদর্শক এস এম শাহজালাল সাইবার ক্রাইম বিভাগ।

মামলার রহস্য উদঘাটনে পুলিশ পরিদর্শক আমেনা খাতুন ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টার, অস্ত্রসহ ডাকাত গ্রেফতারে এসআই জাকির হোসেন ওয়ারী থানা, চুরি মামলার রহস্য উদঘাটন ও টাকা উদ্ধারে এসআই হালদার অর্পিত ঠাকুর শ্যামপুর থানা, ভুয়া পুলিশসহ গাড়ি আটক সার্জেন্ট মো. জুনাইদুর রহমান শেরে বাংলা নগর ট্রাফিক জোন।

ওয়ারেন্ট নিষ্পত্তিতে এসআই মো. আবু সাঈদ বিমানবন্দর থানা, আসামি গ্রেফতারে সম্মিলিতভাবে সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার মো. কামরুজ্জামান সরদার তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল জোন, সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার মহরম আলী বিমানবন্দর জোনাল টিম ও সহকারী পুলিশ কমিশনার শেখ ইমরান হোসেন সিটিটিসি। চোরাই মোটরসাইকেল আটকে সম্মিলিতভাবে সার্জেন্ট মো. কাইসার আহাম্মেদ ট্রাফিক ডেমরা জোন, সার্জেন্ট মো. আশিকুল ইসলাম মিরপুর ট্রাফিক জোন ও নারী সার্জেন্ট রেহানা পারভীন শেরে বাংলা নগর ট্রাফিক জোন, বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কাব্যধারা রচনা করায় কনস্টেবল মো. আবু বকর মোল্লা পল্টন মডেল থানা।

বিশেষ ক্যাটাগরিতে পুরস্কার প্রাপ্তরা হলেন, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (প্রশাসন), অপারেশন শাখা ডিএমপি, উপ-পুলিশ কমিশনার (সদর দপ্তর ও প্রশাসন), উপ-পুলিশ কমিশনার (লজিস্টিকস), উপ-পুলিশ কমিশনার ( রমনা, গুলশান, মিরপুর, অর্থ, সাইবার সিকিউরিট, কল্যাণ ও ফোর্স, সিটিটিটি, ডিপ্লোমেটিক সিকিউরিটি, ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম, স্পেশাল এ্যাকশন গ্রুপ, ইএন্ডডি), অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (সদর দপ্তর ও প্রশাসন), নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. মশিউর রহমান, সিস্টেম এ্যানালিস্ট, এস এম জাহাঙ্গীর হাসান সহকারী পুলিশ কমিশনার সোয়াটকে পুরস্কার প্রদান করা হয়।

মাসিক অপরাধ সভায় আগত পুলিশ সদস্যদের উদ্দেশ্যে কমিশনার বলেন, আপনাদের কাজের মধ্যে আমি সততা, পেশাদারিত্ব, দেশপ্রেম ও জনদায়বদ্ধতা দেখেছি। এই জন্য আপনাদের স্যালুট জানাই। নিজেদের পেশা, জনদায়বদ্ধতা ও নীতির উপর অটল থেকে জনসেবা দিতে হবে। আমাদের অনেক সীমাবদ্ধতা রয়েছে কিন্তু আন্তরিকতার কোনো ঘাটতি নেই।

টিম ডিএমপি’র প্রতিটি সদস্য পেশাদারিত্ব ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করে কাজ করে যাচ্ছে। সবসময় সরকারি সম্পত্তির সঠিক ও যথাযথ ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে। আজকে যাঁরা পুরস্কৃত হয়েছেন। এই পুরস্কার আপনার কর্মজীবনে কাজের গতি বাড়াবে বলে আমি মনে করি। ডিএমপি’র সকল কৃতিত্ব কোনো একক ব্যক্তির নয়। এই কৃতিত্ব টিম ডিএমপি’র।