নতুন করে আর কোনো ইস্যুতে প্রতিশ্রুতি দেবে না তেহরান!

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের সঙ্গে ছয় জাতিগোষ্ঠীর সই হওয়া পরমাণু সমঝোতা বহাল রাখার সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেছেন। ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে, আন্তর্জাতিক তত্ত্বাবধানে সই হওয়া পরমাণু সমঝোতার বাইরে তেহরান কোনো ইস্যুতে নতুন করে আর কোনো প্রতিশ্রুতি দেবে না। ২০১৫ সালে সই হওয়া সমঝোতা যখন পরিবর্তনের জন্য আমেরিকা বার বার চাপ সৃষ্টি করছে তখন ইরান এ কথা বলল।

আজ (শনিবার) এক বিবৃতিতে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প আরো একবার এ সমঝোতার আওতায় ইরানকে নিষেধাজ্ঞার বাইরে রাখার কথা ঘোষণা করেছেন। অভ্যন্তরীণ ঐক্য ও আন্তর্জাতিক সমর্থনের কারণে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প, ইহুদিবাদী ইসরাইল ও কট্টর যুদ্ধকামী জোটের প্রচেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে।

শুক্রবার হোয়াইট হাউজ এক বক্তব্যে তিনি বলেন, শেষবারের মতো প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ইরানের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা থেকে বিরত থাকলেন। তবে আগামী ১২০ দিনের মধ্যে ইউরোপীয় মিত্রদের সঙ্গে বৃহত্তর ঐক্য প্রতিষ্ঠা করে তিনি ইরানের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেবেন।

ট্রাম্প বার বার ইরানের সঙ্গে সই হওয়া পরমাণু সমঝোতা বাতিলের হুমকি দিয়েছেন তারপরও তিনি শুক্রবার বলেছেন, চরম অনিচ্ছা সত্ত্বেও আমি ইরানের পরমাণু সমঝোতা থেকে আমেরিকাকে প্রত্যাহার করে নিচ্ছি না। বরং সম্ভাব্য দুটি পথ আমি দিচ্ছি; এর একটি হচ্ছে- হয় এ সমঝোতার বিপর্যয়কর ত্রুটি দূর করতে হবে, না হয় আমেরিকা এ থেকে নিজেকে প্রত্যাহার করে নেবে।

হোয়াইট হাউজ এ ঘোষণা দিলেও ইউরোপীয় ইউনিয়ন, চীন ও রাশিয়া পরিষ্কার করে বলেছে, ইরানের সঙ্গে সই হওয়া পরমাণু সমঝোতা ঠিকমতো কাজ করছে এবং এ নিয়ে তারা নতুন করে আলোচনায় অংশ নেবে না। ইরানও অত্যন্ত দৃঢ়ভাবে বলেছে, পরমাণু সমঝোতা নিয়ে আর কোনো আলোচনা হবে না। আজকের বিবৃতিতে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সে কথা আবারো উল্লেখ করেছে