বিমানকে লাভজনক প্রতিষ্ঠানে আমার ভাই নিয়ে গেছেঃ শাহজাহান

বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বকে অনেকে আগুনে নিক্ষেপ করার সঙ্গে তুলনা করেছেন উল্লেখ করে নতুনমন্ত্রী এ কে এম শাহজাহান কামাল জানান, ‘আগুন নয় এটা আমার জন্য পানি।’ বৃহস্পতিবার সকালে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে দায়িত্ব গ্রহণ অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি থেকে বিমান ও পর্যটন মন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন। মেননকে সরিয়ে বুধবার লক্ষ্মীপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য এ কে এম শাহজাহান কামালকে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীর দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। মেনন পেয়েছেন সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব।

শাহাজাহান কামাল বলেন, ‘অনেকে বলেছেন আপনাকে আগুনে নিক্ষেপ করা হয়েছে।’ এসময় হাসতে হাসতে তিনি বলেন, ‘না, না, এটা আগুন নয় এটা আমার জন্য পানি। যে পানি খাইয়্যা আমি জীবন বাঁচাই, সেটা আমার জন্য পানি। আমি এটাও বলি আমি পারব ইনশাল্লাহ, আমি আশাবাদী, আমি নিরাশাবাদী নই, আপনাদের সহযোগিতা আমি চাই। বিমানকে লাভজনক প্রতিষ্ঠানে আমার ভাই নিয়ে গেছে, আমি আশা করি বাংলাদেশ বিমান হবে এশিয়া মহাদেশের একটি লাভজনক প্রতিষ্ঠান।’

সদ্য বিদায়ী মন্ত্রী মেনন বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ে তার উন্নয়ন কর্মকাণ্ড তুলে ধরেন। আগামীদের চ্যালেঞ্জগুলো সম্পর্কেও অবহিত করেন নতুন মন্ত্রীকে। শাহজাহান কামাল বলেন, ‘তিনি (মেনন) চার বছর এই মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে ছিলেন। অত্যন্ত সুন্দরভাবে পরিচালনা করেছেন। তার বক্তৃতা থেকে কিছুটা অভিজ্ঞতা নিয়েছি। আজ উনি এখান থেকে বিদায় নিচ্ছেন কিন্তু আমি বিদায় দিতে চাই না। আমি মনে করি তার চার বছরের অভিজ্ঞতা আমি যখনই উনাকে কোনো সিদ্ধান্তের ব্যাপারে জিজ্ঞেস করব, সহযোগিতা কামনা করব, তিনি যেন আমাকে সহযোগিতা দেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমার ভাই (মেনন) তিনি একজন প্রগতিশীল নেতা, দেশপ্রেমিক, তিনি কোনো সম্পদের মালিক নয়, অর্থের মালিকের জন্য রাশেদ খান মেনন রাজনীতি করে নাই। আমি তাকে ছাত্রজীবন থেকে চিনি। আমি আপনাদের সহযোগিতা কামনা করি। সময় কম, ৯ মাস সময় পাব কী না।’

নতুন বিমানমন্ত্রী বলেন, ‘আমি সিভিল অ্যাভিয়েশন এবং বিমান মন্ত্রণালয়ের অনেক বদনাম শুনেছি। আমি নিজেই বিমানে ভ্রমণ করি। আমি যখনই সুযোগ পাই বাংলাদেশ বিমানে চিটাগাং যাই। আমি বলি যে তোফায়েল সাহেব আমার বেয়াই হন। আমি মেয়ে বিয়ে দিছি উনার সন্তানের কাছে। তিন দিন আগে নেত্রী বললেন আপনি দায়িত্ব নেন, তিনি বললেন না না না আমি নেব না। গতকাল (বুধবার) তিনি (তোফায়েল আহমেদ) আমার বাসায় এসে আমাকে সাহস দিয়ে গেছেন।’

বিমানকে লাভজনক করতে কী কী পদক্ষেপ নেবেন- সাংবাদিকরা জানতে চাইলে শাহজাহান কামাল বলেন, ‘বিমানকে লাভজনক করা খুব কঠিন কাজ না, আমি মনে করি যেহেতু আমি জাতির জনকের সঙ্গে কাজ করেছি। আর এখন আমি কাজ করছি বঙ্গবন্ধুর কন্যার সঙ্গে। এই মন্ত্রণালয়কে লাভজনক প্রতিষ্ঠা করার জন্য আমার জীবন দিয়ে হলেও রক্ত দিয়ে হলেও আমি চেষ্টা করব। নতুন পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করে যাব নিষ্ঠা ও সততার সঙ্গে।’

বিমানের বিষয়ে কী বদনাম শুনেছেন এবং তা দূর করতে কী পদক্ষেপ নেবেন জানতে চাইলে বিমান ও পর্যটন মন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশের বদনাম শুনেছি। বিমানে চড়লে ঠিকমত সার্ভিস দেয় না এবং জনগণ বিমানের ভালো সার্ভিস পায় না। এটা বাইরের লোকজন বলতেছে, বাইরের বদনামটা আমি শুনছি। আসলে বাইরে যতটুকু শোনা যায় প্র্যাকটিক্যাল যখন আসলো ততটুকু নয়, এই বদনামকে আমি ধুয়ে-মুছে সুন্দর করে পরিষ্কার করে দেব।’

এরপর রাশেদ খান মেনন নতুনমন্ত্রী শাহজাহান কামালকে সঙ্গে নিয়ে তাকে মন্ত্রীর চেয়ারে হাত ধরে বসিয়ে দেন। এ সময় বিমান ও পর্যটন সচিব এস এম গোলাম ফারুক ও অধীনস্ত সংস্থার প্রধানরা উপস্থিত ছিলেন।