দক্ষিণখান থানার বিশাল সাফল্য, ১০ হাজার ইয়াবা সহ আটক-৩

সারাদেশ যখন মাদকের কড়াল গ্রাসে নিমজ্জিত ঠিক তখনই একের পর এক মাদক সম্রাট আটক, মাদক জব্দ করে সাফল্যের স্বর্ণ শিখড়ে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে আছে দক্ষিণ খান থানা পুলিশ। তার ধারাবাহিকতায় গত ২৯/১২/১৭ইং চৌকস অভিৃযান চালিয়ে ১০ হাজার পিচ ইয়াবা ট্যাবলেট সহ তিন মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করে দক্ষিণখান থানা পুলিশ।

ঘটনার প্রকাশ গত ২৯/১২/২০১৭খ্রি: ১২.৩৫ ঘটিকায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে দক্ষিণখান জোনের সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার জনাব মো: মিজানুর রহমান এবং দক্ষিণখান থানার অফিসার ইনচার্জ জনাব তপন চন্দ্র সাহা পিপিএম-বার এর নেতৃত্বে এসআই/সৈয়দ আসাদুজ্জামান, এএসআই/মো: আল আমিন, এএসআই/মো: মমিনুল ইসলাম, নারী এএসআই/মৌসুমী আক্তার সহ দক্ষিণখান থানাদীন ৩৭ পন্ডিত পাড়াস্থ মেসার্স ব্রাদার্স ট্রেডার্স এন্ড ফার্নিচার্স এর সামনে হতে আসামী ০১। পারুল বেগম (৩৯), স্বামী-মো: মিজান @ নিজাম , সাং-পরানপুর , থানা- চাটখিল , জেলা-নোয়াখালী , ০২। মনিরুল হাসান সোহান (২৮) , পিতা-মৃত-আবুল হাসেম , সাং-হাতিমারা , থানা-মনোহরগঞ্জ, জেলা-কুল্লিা, বর্তমান ঠিকানা- বাড়ী নং-৫২৯৩ (প্লাট নং-ডি-৩৩ (কাতার ভিলা ৬ষ্ট তলা), গিরিধারা আবাসিক এলাকা, থানা-কদমতলী, ডিএমপি-কে গ্রেফতার করা হয়। আসামীদ্বয়ের হেফাজত হতে ৪০০০ (চার হাজার) পিচ ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্দার করা হয়। আসামীদ্বয়কে জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে তারা স্বীকার করে যে, ০১নং আসামী পারুল বেগম এর বাসায় ইয়াবা মজুদ আছে। আসামীদ্বয়ের স্বীকারোক্তি মোতাবেক সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার (দক্ষিণখান জোন) এবং অফিসার ইনচার্জ দক্ষিণখান থানা সাহেবের নেতৃত্বে উপরে উল্লেখিত অফিসার এবং ধৃত আসামীদ্বয় সহ কদমতলী থানার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হইয়ে কদমতলী থানার অফিসার ফোর্স সহ কদমতলী থানাধীন বাড়ী নং-৫২৯৩ (ফ্লাট নং-ডি-৩৩) “কাতার ভিলা” ৬ষ্ট তলায় উপস্থিত হলে আসামী পারুল বেগম তার ভাড়াটিয়া বাসার শয়ন কক্ষে থাকা ষ্টীলের আলমিরা খুলে কাপড়ের ভাজের মধ্য হতে ৬০০০ (ছয় হাজার) পিচ ইয়াবা ট্যাবলেট নিজ হাতে করে দেয় এবং ০১ নং আসামীর দেখানো মতে আসামী ছাবেকুন্নাহার (৪৫), স্বামী-মো: মজিবুর রহমান, সাং-বাসা নং-৯৫০, চকরিয়া জনতা মার্কেট পাড়া, থানা-চকরিয়া, জেলা-ক্সবাজার, বর্তমান ঠিকানা-বাড়ী নং-৫২৯৩ (ফ্লাট নং-ডি-৩৩ (কাতার ভিলা ৬ষ্ট তলা), গিরিধারা আবাসিক এলাকা, থানা-কদমতলী, ডিএমপিকে গ্রেফতার করা হয়। আসামীরা বিক্রয়ের উদ্দেশ্য ইয়াবা ট্যাবলেট হেফাজতে রেখে ১৯৯০ সনের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনের ১৯ (১) এর ৯ (খ)/২৫ ধারায় অপরাধ করায় আসামীদের বিরুদ্ধে দক্ষিণখান থানায় ও কদমতলী থানায় পৃথক মামলা রুজু হয়েছে।

এবিষয়ে দক্ষিণখান থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জনাব তপন কুমার সাহা এই প্রতিবেদককে জানান- “মাদককে দমন করতে আমি বদ্ধপরিকর। দক্ষিণখান থানাকে মাদক মুক্ত ত আমি দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। মাদকের বিরুদ্ধে আমার অভিযান চলবে”। দক্ষিণখান জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার জনাব মিজানুর রহমান সাংবাদিকদের জানান-“পুলিশ জনগনের-বন্ধু। জনগনের সুখ, সুবিধা ও দেশকে মাদকমুক্ত করতে আমরা আছি সবার সাথে। আমি মাদকের বিরুদ্দে জিহাদ ঘোষনা করেছি। অপরাধী যেই হোক না কেন, কেউ আইনের উর্দ্ধে নয়।

এরিপোর্ট লেখা পর্যন্ত আসামীদের কোর্টএ প্রেরণ করা হয়েছে। দক্ষিণখান থানা পুলিশের এ সাফল্যে এলাকায় শান্তি ফিরে এসেছে।

তানজিন মাহমুদ তনু, নিজস্ব প্রতিবেদক