শরণার্থীদের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানান পোপ ফ্রান্সিস

আপন ভূমি থেকে বিতাড়িত’ লাখো শরণার্থীদের দুর্দশাকে এড়িয়ে না যাওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন বিশ্বের ক্যাথলিক সম্প্রদায়ের প্রধান ধর্মগুরু পোপ ফ্রান্সিস। রবিবার (২৪ ডিসেম্বর) ভ্যাটিকানে বড়দিনের আগের সন্ধ্যায় জড়ো হওয়া সব বয়সী মানুষের উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে তিনি এ আহ্বান জানান।

বড়দিন উপলক্ষে ভ্যাটিকানে নিজের দেয়া ভাষণে শরণার্থীদের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানিয়েছেন ক্যাথলিক সম্প্রদায়ের প্রধান ধর্মগুরু পোপ ফ্রান্সিস। খ্রিস্টানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব উপলক্ষে রবিবার সন্ধ্যায় ভ্যাটিক্যানে জড়ো হওয়া মানুষের উদ্দেশ্যে পোপ বলেন, আপন ভূমি থেকে বিতাড়িত লাখো শরণার্থীদের দুর্দশাকে এড়িয়ে যাবেন না। ভাষণে শরণার্থীদের মেরি ও জোসেফের সঙ্গে তুলনা করে বাইবেল থেকে উদ্ধৃত এক গল্পের মাধ্যমে পোপ বলেন, মেরি ও জোসেফও একইভাবে নাজারেথ থেকে বেথেলহাম এসেছিলেন।

বর্তমান বিশ্বে প্রায় ২২ মিলিয়ন শরণার্থী রয়েছেন। তাদের মধ্যে মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর অত্যাচারে বাংলাদেশে পালিয়া আসা শরণার্থীও রয়েছেন। সম্প্রতি শরণার্থীদের দেখতে বাংলাদেশ ও মিয়ানমারে গিয়েছিলেন পোপ। তিনি বলেন, নিরীহদের রক্ত-শোষণকে যারা সমস্যা মনে করে না, এমন নেতাদের কবল থেকে পালাতে বাধ্য হচ্ছেন শরণার্থীরা।

বিদেশিদের সর্বত্র স্বাগত জানানোর ওপর গুরুত্বারোপ করে ৮১ বছর বয়সী এই আর্জেন্টাইন ধর্মগুরু নিজেকে ইতালিয়ান শরণার্থীদের দৌহিত্র বলে দাবি করেন। পোপ বলেন, আমরা মিলিয়ন মানুষের পদচিহ্ন দেখেছি, যারা তাদের ভূমি থেকে উচ্ছেদ হয়েছেন এবং পিছনে প্রিয়জনদের ফেলে এসেছেন। তাদের ফিরে যাওয়ার উপায় নেই।