‘বাংলাদেশে বসবাস করলেও খালেদার অন্তরে পাকিস্তান’

আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক শামীম বলেছেন, বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়া বাংলাদেশে বসবাস করলেও অন্তরে পাকিস্তান লালন-পালন করে। তিনি পাকিস্তানের ধারক-বাহক। সে কারণে তিনি পাকিস্তানের বাইরে অন্য কিছু বলতে পারেন না। তাই পাকিস্তানের সাথে আমাদের তুলনা করে। সোমবার দুপুরে শরিয়তপুরের নড়িয়ার ডিঙামানিক ইউনিয়নের পন্ডিতসার উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ প্রাঙ্গণে বিজয় দিবসের আলোচনা সভা ও শীতবস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

শামীম বলেন, বিএনপি নেত্রী বাংলাদেশের দুইবারের প্রধানমন্ত্রী হলেও আসলে তিনি পাকিস্তানকে অন্তরে বিশ্বাস করেন। তিনি যখন প্রথম প্রধানমন্ত্রী তখন তিনি যার হাতে মুক্তিযুদ্ধের সময় বন্দী ছিলেন সেই জেনারেল জানজুয়া পাকিস্তানে সেনাপ্রধান হিসেবে মৃত্যুবরণ করেন। সঙ্গে সঙ্গে খালেদা জিয়া সবাইকে হতবাক করে দিয়ে শোকবার্তা পাঠান। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীও শোক জানাননি তখনও। কাজেই আমরা অনেকে এ বক্তব্যে বিস্মিত বা বিচলিত হইনি। খালেদা জিয়া যা বলেছেন, তা তার জন্য স্বাভাবিক। না বললেই মনে হতো অস্বাভাবিক। মনেপ্রাণে তিনি পাকিস্তানের পূজারি। বাধ্য হয়ে বাংলাদেশের নাগরিক হওয়ায় তার মধ্যে একটি যন্ত্রণা আছে, তার বহি:প্রকাশ মাঝে মাঝে ঘটে যায়।

এ সময় আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়েও কথা বলেন তিনি। আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বলেন, সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচিত সরকারের অধীনেই নির্বাচন হবে। সংবিধানের বাইরে গিয়ে অনির্বাচিতদের হাতে ক্ষমতা ছেড়ে দেওয়া হবে না। নিয়মানুযায়ী বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাই নির্বাচনকালীন সরকারের প্রধান থাকবেন। প্রধানমন্ত্রীর অধীনেই বিএনপিকে নির্বাচনে অংশ নিতে হবে।

বিএনপির আন্দোলনের হুমকি প্রসঙ্গে ছাত্রলীগের সাবেক এই সভাপতি বলেন, আওয়ামী লীগকে আন্দোলনের হুমকি দেখাবেন না। আন্দোলন কাকে বলে-কত প্রকার, কী কী তা আওয়ামী লীগ ভাল করেই জানে। গণতান্ত্রিক রাজনীতি করলে সরকার সব ধরনের সহায়তা করবে। কোন ধরনের বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করা হলে বরদাশত করা হবে না।

আওয়ামী লীগকে ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান জানিয়ে শামীম বলেন, আওয়ামী লীগকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। মনে রাখতে হবে-সামনে জাতীয় নির্বাচন আমাদের জন্য কঠিন চ্যালেঞ্জ। এই চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় সবাইকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। তৃণমূল ঐক্যবদ্ধ থাকলে যে কোন পরিস্থিতিতে আমরা জয়ী হবো।

নড়িয়া আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ফজলুল হক মালের সভাপতিত্বে এ সময় আরও বক্তব্য দেন উপজেলা চেয়ারম্যান একেএম ইসমাইল হক, সখিপুর থানা সভাপতি হুমায়ুন কবির মোল্লা, নড়িয়া উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান জাকির হোসেন, পৌর মেয়র শহিদুল ইসলাম বাবু রাড়ী, জেলা আওয়ামী লীগ নেতা মিজানুর রহমান বাদল, ইউপি চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতাদের মধ্যে শওকত হোসেন বয়াতি, আলম বয়াতি, শাহ আলম চৌকিদার, বাবুল হোসেন মোল্লা, আলমগীর হোসেন, জহির সিকদার প্রমুখ।