নিজ ঘরে আটকে রেখে দুইদিন ধরে গণধর্ষণ

বরিশালের হিজলা উপজেলার দূর্গম চরাঞ্চল চরজানপুরে এক নারীকে নিজ ঘরের মধ্যে দুইদিন আটকে রেখে পালাক্রমে গণধর্ষণ করা হয়েছে। খবর পেয়ে হিজলা পুলিশ ওই নারীকে উদ্ধার ও দুই ধর্ষককে গ্রেফতার করেছে। ধর্ষিতা নারী বাদী হয়ে দুই ধর্ষকের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। মামলার আসামিরা হলেন, হিজলার চরখলিসাপুরের মো. আকতার হোসেন মাঝি ও চরকিল্লা পূর্বের চরের জসিম মল্লিক।

গ্রেফতার হওয়া দুজন পুলিশের কাছে গৃহবধূকে ধর্ষণের কথা স্বীকার করলেও আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দিতে তা অস্বীকার করেছে। সোমবার বিকেলে জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শাম্মি আকাতারের আদালতে তাদের সোপর্দ করে পুলিশ। পরে তারা বিচারকের কাছে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেন।

জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের নিবন্ধন কর্মকর্তা (জিআরও হিজলা) এ এসআই জিয়াউল হক জানান, আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দিতে তারা বলেন, ওই নারী (ধর্ষিতা) নিজ ইচ্ছায় তাদের সঙ্গে মেলামেশা করেছে। তাকে জোরপূর্বক কোনো কিছু করা হয়নি। জবানবন্দি গ্রহণ শেষে আদালত অভিযুক্ত দুই জনকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। একই সঙ্গে মামলার বাদীকে (ধর্ষিতা) ধর্ষণ সংক্রান্ত মেডিকেল পরীক্ষার জন্য শের-ই-বাংলা চিকিৎসা মহাবিদ্যালয় হাসপাতালে পাঠানো জন্য বলেন।

হিজলা থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এসএম মাকসুদুর রহমান মামলার আরজির বরাত দিয়ে জানান, চরজানপুর হিজলা-গৌরবদী ইউনিয়নের পূর্বপ্রান্তের মেঘনার একটি চর। উপজেলা সদর থেকে ওই চরে যেতে ট্রলারে ৩/৪ ঘণ্টা সময় লাগে। সেখানে জনবসতিও কম। কাজের সন্ধানে গৃহবধূর স্বামী অন্যত্র যাওয়ায় তার স্ত্রীকে আটকে রেখে গত ২২ ও ২৩ ডিসেম্বর আসামিরা পালাক্রমে ধর্ষণ করে।