থ্রিডি প্রিন্টারে ‘মুন ভিলেজ’ তৈরি মাধ্যমে চাঁদে মানববসতি স্থাপন

ইউরোপিয়ান স্পেস এজেন্সি ইউএসএ আশাবাদ ব্যক্ত করছে ২০৩০ সালের মধ্যে থ্রিডি প্রিন্টারে ‘মুন ভিলেজ’ তৈরি মাধ্যমে চাঁদে মানববসতি স্থাপন করার। ইউএসএ বিজ্ঞানীদের পরিকল্পনা অনুযায়ী, চাঁদে মানুষের জীবনধারণের উপযোগী বাসস্থানের অবকাঠামো তৈরি করার কাজে রোবট ব্যবহার করা হবে। একদা তৈরি শেষে ‘চাঁদের শহর’ থেকে মহাকাশের বিভিন্ন প্রান্তে অভিযান চালানোর পরিকল্পনা করছেন বিজ্ঞানীরা।

মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা ‘লালগ্রহ’ মঙ্গলে পানির উপস্থিতি আবিস্কারের পর থেকেই মহাকাশে নতুন প্রাণের সন্ধানে বিজ্ঞানীদের গবেষণা নতুন গতি পেয়েছে। এর মধ্যেই ‘মুন ২০২০-২০৩০’ নামের দুই দিনের এক সম্মেলনে চাঁদে বসতি স্থাপনের পরিকল্পনার একথা জানালো ইউএসএ। একটি ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম এই ঘটনাকে ‘এ নিউ এরা অব কোঅর্ডিনেটেড হিউম্যান অ্যান্ড রোবোটিক এক্সপ্লোরেশন’ হিসেবে অভিহিত করা হয়েছে। এর আগে ২০১৩ সালে থ্রিডি প্রিন্টারের কাঁচামাল হিসেবে চাঁদের মাটি ব্যবহারের সম্ভাব্যতা যাচাই করে ইউএসএ। থ্রিডি প্রযুক্তিতে চাঁদে উপস্থিত কাঁচামাল দিয়েই নভোচারীদের টিকে থাকার জন্য প্রয়োজনীয় কাঠামো তৈরি সম্ভব বলে নিশ্চিত করেন বিজ্ঞানীরা।