‘সঙ্গীত মহাসম্মান’ পুরস্কার পেলেন রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা

সঙ্গীতে বিশেষ অবদানের জন্য বাংলাদেশের প্রখ্যাত রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যাকে ‘সঙ্গীত মহাসম্মান’ পুরস্কারে ভূষিত করেছে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার। শনিবার সন্ধ্যায় কলকাতায় ‘উত্তীর্ণ’ মুক্তমঞ্চে বাংলা সঙ্গীতমেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে শিল্পীকে এই সম্মানে পুরস্কৃত করা হয়।

পুরস্কার স্বরূপ ৫০ হাজার রুপি, উত্তরীয় ও স্মারক তুলে দেওয়া হয় বন্যার হাতে। পুরস্কার তুলে দেন রাজ্যটির মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বন্যার পাশাপাশি এই সম্মানে ভূষিত হন আরও ৭ জন শিল্পী। এরা হলেন তবলা বাদক শুভঙ্কর বন্দোপাধ্যায়, সন্তুর বাদক তরুণ ভট্টাচার্য, গিটারে দেবাশিস ভট্টাচার্য, লোকগীতিতে স্বপন বসু, ঝুমুর শিল্পী বিমলা দেবী, পট গানের শিল্পী স্বর্ণ চিত্রকর ও ফকিরি গানে খাইবার ফকির।

সন্ধ্যায় ‘বিশেষ সঙ্গীত সম্মান, সঙ্গীত মহাসম্মান ও সঙ্গীত সম্মান’-এই তিনটি ধারায় পুরস্কার তুলে দেওয়া হয় সঙ্গীত জগতের সমস্ত ক্ষেত্রের শিল্পীদের।  ‘বিশেষ সঙ্গীত সম্মান’এর পুরস্কার মূল্য ২ লাখ রুপি। এই সম্মান তুলে দেওয়া হয় সঙ্গীতশিল্পী অভিজিৎ ভট্টাচার্য (মুম্বাই) ও জিৎ গাঙ্গুলীকে।  অন্যদিকে ‘সঙ্গীত মহাসম্মান’ পুরস্কার প্রাপকদের মধ্যে ছিলেন ইমন চক্রবর্তী, পরিমল ভট্টাচার্য, দূর্বাদল চট্টোপাধ্যায়, গৌতম দাস বাউল, মায়ারানি পোদ্দারসহ মোট ১৩ জন শিল্পী। পুরস্কার বাবদ প্রত্যেক শিল্পীর হাতে তুলে দেওয়া হয় ১ লাখ রুপি, উত্তরীয় ও স্মারক।

এদিনের এই অনুষ্ঠানে পুরস্কার প্রাপক শিল্পীরা ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায়, দ্বিজেন মুখোপাধ্যায়, অজয় চক্রবর্তী, হৈমন্তী শুক্লা, সৈকত মিত্র, উষা উত্থুপ, দেবজ্যাতি বোস, রাজ্য সরকারের তিন মন্ত্রী যুব কল্যাণ মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস, তথ্য ও সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী ইন্দ্রনীল সেন, বিদ্যুৎ মন্ত্রী শোভন দেব চট্টোপাধ্যায়সহ বিশিষ্টরা। অনুষ্ঠানে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুরোধে কয়েকটি গানও গেয়ে শোনান সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায়।

শনিবার সঙ্গীত মেলার উদ্বোধনের পর আগামী কয়েকদিন ধরেই এই গানমেলার অনুষ্ঠান চলবে শিশির মঞ্চ, ফণিভূষণ, মধুসূদন মঞ্চ, রবীন্দ্র ওকাকুরা ভবনসহ কলকাতা শহরের কয়েকটি মঞ্চে। আগামী ৩০ ডিসেম্বর কলকাতার রবীন্দ্রসদনে হবে এই গান মেলার সমাপনী অনুষ্ঠান।