‘প্রতিবাদ হওয়া উচিত আন্দোলন করে, নোটিশ দিয়ে নয়’

আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য সাবেক মন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক এমপি বলেছেন, সহায়ক সরকার বলতে কিছু নেই। পৃথিবীর কোথাও এ ধরনের সরকারের নজির পাওয়া যাবে না। সংবিধানের আলোকেই নির্বাচন হবে। তাই বিএনপিকে বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর অধীনেই নির্বাচনে আসতে হবে।

শুক্রবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে প্রয়াত জাতীয় নেতা আব্দুর রাজ্জাকের স্মরণে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। আগামীকাল ২৩ ডিসেম্বর আওয়ামী লীগের সাবেক এ প্রেসিডিয়াম সদস্যের ৬ষ্ঠ মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভার আয়োজন করে ডামুড্যা উপজেলা যুব কল্যাণ ট্রাস্ট, ঢাকা।

সংগঠনের সভাপতি আসাদুজ্জামান আজমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন, ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, বাংলাদেশ কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট খন্দকার সামসুল হক রেজা, তরুণ আওয়ামী লীগ নেতা ব্যারিস্টার জাকির আহাম্মদ, বাংলাদেশ গণআজাদী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ আতা উল্লাহ খান, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক আকতার হোসেন, শাহবাগ থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি জিএম আতিক, সংযুক্ত আরব আমিরাত আওয়ামী লীগের সভাপতি আল মামুন সরকার প্রমুখ।

আব্দুর রাজ্জাক বলেন, কোনো হুমকি-ধামকি কাজে আসবে না। ২০১৯ সালে নির্ধারিত সময়ে জাতীয় নির্বাচন হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অর্ন্তবর্তীকালীন সরকার নির্বাচন কমিশনকে সহায়তা করবে। এর বাইরে যাবার কোন সুযোগ নেই। সদ্য সমাপ্ত রংপুর সিটি নির্বাচন নিয়ে সাবেক এ মন্ত্রী বলেন, রংপুর সিটি নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু হয়েছে। আমরা জিততে পারি নাই। আমাদেরও ব্যর্থতা থাকতে পারে। জনগণ যে রায় দেয়, আওয়ামী লীগ তা মেনে নেয়। এ সময় বিএনপিকে সহায়ক সরকারের দোহাই বাদ দিয়ে জনগণের কাছে যাবার পরামর্শ দেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রীকে উকিল নোটিশ দেয়া প্রসঙ্গে ড. আব্দুর রাজ্জাক বলেন, কোন রাজনৈতিক দলের প্রতিবাদ হওয়া উচিত আন্দোলন করে, কোন নোটিশ দিয়ে নয়। জিয়া পরিবার যে বাংলাদেশি টাকা পাচার করেছেন এটা স্বীকৃত। গোটা বিশ্বের কাছে প্রমাণিত। নোটিশের জবাব আইনগত এবং রাজনৈতিকভাবেই দেয়া হবে। প্রয়াত নেতা আব্দুর রাজ্জাকের বনার্ঢ্য জীবনের স্মৃতিচারণ করে তিনি বলেন, জননেতা আব্দুর রাজ্জাক ছিলেন আমাদের নেতা, কর্মীবান্ধব নেতা। তিনি সারাজীবন বঙ্গবন্ধুর আদর্শে অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠায় কাজ করেছেন।