‘মূর্খের ন্যায় খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করছেন প্রধানমন্ত্রী’

‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গায়ের জোড়ে মূর্খের ন্যায় অহংকার নিয়ে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করছেন’ বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী।

তিনি বলেন, ‘মিথ্যাচারের প্রমাণ না দেয়ায় বিএনপির চেয়ারপারসন প্রধানমন্ত্রীকে উকিল নোটিশ দিয়েছেন। এখন আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে সন্ত্রাসী কায়দায় আক্রমণ করা হচ্ছে। উকিল নোটিশ প্রত্যাহার করুন, না করলে আমাদের বিরুদ্ধে মামলা হবে বলা হচ্ছে।’

শুক্রবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে দৈনিক আমার দেশ পরিবার আয়োজিত পত্রিকারটির সম্পাদক মাহমুদুর রহমানের বিরুদ্ধে হয়রানিমূলক মামলা প্রত্যাহার ও পত্রিকা খুলে দেওয়ার দাবিতে এক প্রতিবাদী মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

রিজভী বলেন, ‘আপনি (প্রধানমন্ত্রী) বললেন বেগম খালেদা জিয়ার সৌদি আরবে হোটেলসহ অনেক কিছু আছে তার প্রমাণ কই, দিতে পারবেন না। গায়ের জোড়ে মূর্খের অহংকার নিয়ে আপনি মিথ্যাচার করছেন।’ ‘মিথ্যা কথা বলার জন্য, বখাটে হওয়ার জন্য আওয়ামী লীগ একটি উন্নতমানের প্রতিষ্ঠান। সেখান থেকে সেঞ্চুরি হয় নারী নির্যাতন ও টেন্ডারবাজির। সেই প্রতিষ্ঠানের যিনি হেডমাস্টার তিনি তো বলবেনই বেগম খালেদা জিয়ার নামে দেশের বাহিরে এই আছে, সেই আছে’ -বলেন তিনি।

মিথ্যা বানোয়াট অসত্য মামলায় প্রতি সপ্তাহে খালেদা জিয়াকে হয়রানি করা হচ্ছে দাবি করে বিএনপির এ মুখপাত্র বলেন, ‘সপ্তাহে দুই-তিন দিন তাকে হাজিরা দিতে কোর্টের বারান্দায় নেয়া হচ্ছে। আমরা কী কিছুই বুঝি না? কিছুই উপলদ্ধি করতে পারি না? প্রধানমন্ত্রী আপনার আইন মন্ত্রণালয় থেকে কোন কর্মকর্তা কার নির্দেশ যায় আদালতে -এগুলোও আমরা জানি। আমরা কোনো কিছুই কিন্তু আন রেজিস্টার্ড রাখছি না, সব রেজিস্টার্ড থাকছে। আপনার দানবীয় কর্মকাণ্ডের প্রতিটি অক্ষর আমাদের কাছে লিপিবদ্ধ আছে।’

আওয়ামী লীগের অন্যায়, অত্যাচার আর চলতে দেয়া যাবে না মন্তব্য করে রিজভী বলেন, এখন প্রতিশোধ নেয়ার সময় এসেছে। জনগণ প্রস্তুত হচ্ছে এক প্রান্ত থেকে অপর প্রান্তে। আপনি (প্রধানমন্ত্রী) নির্বাচন করবেন, সুক্ষ্ম কারচুপির মাধ্যমে গতকাল রংপুরে কী হয়েছে আমরা কি জানি না? মানববন্ধন থেকে এ সময় তিনি মাহমুদুর রহমানের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত সকল মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানান।

আমার দেশের নির্বাহী সম্পাদক সৈয়দ আবদাল আহমেদের সভাপতিত্বে এবং ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন (একাংশের) সভাপতি কবি আব্দুল হাই শিকদারের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক নেতা শওকত মাহমুদ, এম আবদুল্লাহ, এম এ আজিজ, কাদের গনি চৌধুরী, শহিদুল ইসলাম প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।