এনামুল-মেহেদির সেঞ্চুরি, রানের পাহাড় গড়ল খুলনা

আগের রাউন্ডেই শিরোপা প্রায় নিশ্চিত করে ফেলা খুলনাকে প্রথম ইনিংসে বিশাল সংগ্রহের দিকে নিয়ে যাচ্ছেন এনামুল হক ও মেহেদি হাসান। টপ অর্ডারের দুই ব্যাটসম্যানের অপরাজিত সেঞ্চুরিতে ঢাকার বিরুদ্ধে বড় লিড নিচ্ছে খুলনা। জাতীয় ক্রিকেট লিগের প্রথম স্তরের ম্যাচের দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষে খুলনার সংগ্রহ ১ উইকেটে ৩৭০ রান। এরই মধ্যে ২৫৭ রানে এগিয়ে গেছে দলটি।

চতুর্দশ সেঞ্চুরি পাওয়া এনামুল অপরাজিত ১৬৭ রানে। তার ২০৬ বলের ইনিংসে ১৮টি চারের পাশে ছক্কা চারটি। অবিচ্ছিন্ন দ্বিতীয় উইকেটে এনামুলের সঙ্গে ২৮১ রানের জুটি গড়া তরুণ মেহেদি অপরাজিত ১৬৮ রানে। ওয়ানডে ঘরানার ব্যাটিংয়ে ১৫১ বলের ইনিংসে ২০টি চারের সঙ্গে হাঁকিয়েছেন দুটি ছক্কা।

বিকেএসপিতে বৃহস্পতিবার বিনা উইকেটে ২৩ রান নিয়ে খেলা শুরু করে খুলনা। মেহেদী হাসান মিরাজের ক্যারিয়ার সেরা বোলিংয়ে আগের দিন মাত্র ১১৩ রানে অলআউট হওয়া ঢাকা দ্বিতীয় দিনে নিতে পারে মাত্র একটি উইকেট। এনামুলের সঙ্গে ৮৯ রানের জুটি গড়ে ফিরে যান সৌম্য সরকার। ভালো শুরুর পর আবারও ইনিংস বড় করতে ব্যর্থ হওয়া বাঁহাতি ওপেনার মোহাম্মদ শরীফের বলে ধরা পড়েন উইকেটরক্ষকের গ্লাভসে।

দিনের বাকি সময়টায় ঢাকাকে হতাশ করেছেন এনামুল-মেহেদি। বিপিএলে খুব একটা ভালো না করা এনামুল চার দিনের ক্রিকেট আছেন ছন্দে। জাতীয় ক্রিকেট লিগের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকও তিনিই। দারুণ এক সেঞ্চুরিতে দুই নম্বরে উঠে এসেছেন মেহেদি। দুই জনের ব্যাটে রান এসেছে বানের স্রোতের মতো। চার দিনের ম্যাচে এনামুল-মেহেদির ৪৯.১ ওভারের জুটিতে রান এসেছে প্রায় পৌনে ছয় করে!

সবচেয়ে বড় ঝড়টা গেছে শাহাদাত হোসেনের ওপর দিয়ে। অভিষিক্ত এই বোলার ১০ ওভারে ৮৩ রান দিয়ে উইকেটশূন্য। অফ স্পিনার শুভাগত হোম চৌধুরী ১২ ওভারে দিয়েছেন ৭০ রান। তরুণ পেসার দেওয়ান সাব্বিরের ৬ ওভার থেকে এসেছে ৪৭ রান।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

ঢাকা ১ম ইনিংস: ১১৩

খুলনা ১ম ইনিংস: ৬৮ ওভারে ৩৭০/১ (এনামুল ১৬৭*, সৌম্য ৩০, মেহেদি ১৬৮*; শরীফ ১/৪১, শাহাদাত ০/৮৩, শুভাগত ০/৭০, নাজমুল ০/১১২, সাব্বির ০/৪৭, তাইবুর ০/১৪)।