চট্টলার সিংহ পুরুষের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শোক

বাংলাদেশের চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন)। তাঁর বয়স হয়েছিল ৭৪ বছর। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে চট্টগ্রামের মেহেদিবাগে বেসরকারি ম্যাক্স হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। রাত সাড়ে ৪টার দিকে এই বর্ষিয়ান নেতার বড় ছেলে ও আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ব্যারিস্টার মুহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল সাংবাদিকদের এ খবর জানান।

তিনি জানান, দীর্ঘদিন ধরে হৃদযন্ত্র, কিডনি ও ডায়াবেটিস রোগের সমস্যায় ভুগছিলেন মহিউদ্দিন চৌধুরী। বৃহস্পতিবার হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। রাতে তাঁকে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়। ভোররাতে তিনি মারা যান।

প্রবীণ রাজনীতিবিদ এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর মৃত্যুতে চট্টগ্রামে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। তার মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে দলীয় নেতাকর্মীসহ হাজার হাজার মানুষ গভীর রাতেই হাসপাতাল ও তার বাসভবনে ভিড় জমায়। চট্টগ্রামের বর্তমান মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন তাকে দেখতে রাতেই ছুটে যান হাসপাতালে।

এদিকে, এবিএম মহিউদ্দীন চৌধুরীর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন প্রেসিডেন্ট মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আজ (শুক্রবার) আছরের নামাজের পর নগরীর লালদীঘি ময়দানে জানাজা শেষে চশমা হিলের পারিবারিক কবরস্থানে তাঁকে দাফন করা হবে। আজ(শুক্রবার) পৃথক শোকবার্তায় তারা মরহুমের আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানান।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরও এক শোকবার্তায় মন্ত্রী মরহুমের আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন এবং তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানান।

চট্টলার সিংহ পুরুষের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শোক

গত ১১ নভেম্বর শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাঁকে চট্টগ্রামের বেসরকারি ম্যাক্স হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরদিন ১২ নভেম্বর ভোররাতে তাঁকে হাসপাতালটির নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) নেওয়া হয়। হাসপাতালে ভর্তির পর শারীরিক অবস্থার উন্নতি হলেও কিডনি ও কার্ডিয়াক সমস্যার কারণে তাঁকে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে ঢাকার স্কয়ার হাসপাতালে নেওয়া হয়। পরে চিকিৎসকদের পরামর্শে তাঁকে সিঙ্গাপুরে নেওয়া হয়। সেখান থেকে ১১ দিনের চিকিৎসা শেষে ২৬ নভেম্বর রাতে দেশে ফেরেন তিনি। সেখানে তাঁর হার্টে রিং পরানো হয়। এরপর তাকে আবারও স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। মঙ্গলবার (১২ ডিসেম্বর) মহিউদ্দিনকে নিয়ে চট্টগ্রামে ফেরেন স্বজনরা। কিন্তু চট্টগ্রামে ফেরার দুদিনের মাথায় শারীরিক অবস্থার আরো অবনতি হলে বৃহস্পতিবার (১৪ ডিসেম্বর) তাকে ফের ম্যাক্স হাসপাতালে ভর্তি করে আইসিইউতে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়।

এবিএম মহিউদ্দীন চৌধুরী ১৯৪৪ সালের ১ ডিসেম্বর চট্টগ্রাম জেলার রাউজান উপজেলার গহিরা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ১৯৯৪ খ্রিস্টাব্দে প্রথমবারের মতো চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র নির্বাচিত হন। ২০০৫ সালে তিনি তৃতীয়বারের মতো চট্টগ্রামের মেয়র নির্বাচিত হন।