দৌলতপুরে কীটনাষক প্রয়োগে ২০ কৃষকের পেঁয়াজ ক্ষেত নষ্ট

কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার ফিলিপনগর ইউনিয়নের পোয়াল বাড়ী মাঠে বায়ার কোম্পানির কোন্সিল কীটনাষক প্রয়োগে ২০ কৃষকের ২৫বিঘা জমির পেঁয়াজ ক্ষেত নষ্ট হয়ে গেছে। ফলে কৃষকের প্রায় অর্ধ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে। 

জানা যায়, উপজেলার ফিলিপনগর ইউপির বাহিরমাদী পোয়ালবাড়ী মাঠ এলাকার কৃষক বুলবুল, রহিদুল, আব্দুল আলিম, গিয়াস উদ্দীন, জয়নুদ্দীন, মকলেচুর রহমান, সমিরুল, আমিরুল, মনিরুল, হিসাব আলী, রানা আহামেদ, রফিকুল, আনিচুর রহমান, সুমন, জাহাঙ্গীর, সবুজ, স্বপনসহ ২০ কৃষক মথুরাপুর বড় বাজারের তুহিন ট্রেডার্স থেকে আগাছা দমনের জন্য বায়ার কোম্পানির কোন্সিল কীটনাষক কিনে পিঁয়াজের ক্ষেতে প্রয়োগ করে। ঐ কীটনাষক ক্ষেতে প্রয়োগ করার কারণে ঘাষের সাথে সাথে পিঁয়াজের গজানো চারাও মারা যায়।

পিঁয়াজ চাষীরা অভিযোগ করে বলেন, কীটনাশক কোম্পানির আশ্বাসের ফলে তারা ঐ বিষ পিয়াজ ক্ষেতে প্রয়োগ করেছিল। এখন তারা পেঁয়াজ ক্ষেত নষ্ট হয়ে যাওয়ায় দিশেহারা হয়ে পড়েছেন। তারা আরো জানান, বাজার দর অনুসারে ক্ষতির পরিমান অর্ধ কোটি টাকা ছাড়িয়ে যাবে। এ ব্যাপারে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তার কার্যালয়ে জানালে, উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা আব্দুর রশিদসহ অন্যান্য কর্মকর্তাগণ পেঁয়াজ ক্ষেত পরিদর্শন করেছেন।

জহুরুল হক, কুষ্টিয়া প্রতিনিধি