সেরা ৩ অর্জনে নাট্যকার ও অভিনেতা জীবন রয়

দর্শকপ্রিয় অভিনেতা ‘জীবন রয়’ ছোট পর্দার বেশ পরিচিত একটা মুখ। মিডিয়াতে পথ চলা শুরুটা বলতে গেলে ‘ফেয়ার এন্ড লাভলী মেন চ্যানেল আই হিরো’র মাধ্যমে। যেখানে তার অবস্থান ছিল দশম। সম্প্রতি ঘোষনা করা হয়েছে ‘চারুনীড়ম স্কুল অফ অ্যাক্টিং পুরস্কার ২০১৭’।  গেল পহেলা ডিসেম্বর শিল্পকলা একাডেমীতে এ পুরস্কারের ঘোষনা করা হয়।  সেখানে তিনটি বিভাগের পুরস্কার অর্জন করেন ‘গহীনের জলছাপ’ খ্যাত অভিনেতা জীবন রয়।

সেরা ৩ অর্জনে নাট্যকার ও অভিনেতা জীবন রয়

জীবন রয় এখন পর্যন্ত কাজ করেছেন, ‘গহীনের জলছাপ’ শীর্ষক স্বল্পদৈর্ঘ্য, ‘ফাঁক ফোকর’, ‘বাঘিনী’, ‘তিন পাগলের হল মেল’, ‘সোনামনির ডাইরি’, ‘মায়ের মতো আপন কেউ নাই’, ‘না জাগতিক না পুরান’সহ বেশ কিছু নাটকে। এদিকে বাংলাভিশনে প্রচারিত হওয়া ‘বিড়াম্বনা’ ধারাবাহিকে অভিনয় করছেন তিনি। দর্শকপরিচয়ে আসেন ‘গহীনের জলছাপ’ শীর্ষক স্বল্পদৈর্ঘ্যের আদলে। যেখানে তার সহশিল্পী হিসেবে ছিলেন ‘হাজার বছর ধরে’ খ্যাত অভিনেত্রী শশী।  এর পর আর থেমে থাকতে হয়নি জীবন’কে।

সম্প্রতি ঘোষণা করা হল ‘চারুনীড়ম স্কুল অফ অ্যাক্টিং পুরস্কার ২০১৭’। গত ১ ডিসেম্বর শিল্পকলা একাডেমীতে এ পুরস্কারের ঘোষণা করা হয়। ‘চারুনীড়ম স্কুল অফ অ্যাক্টিং পুরস্কার ২০১৭’ শ্রেষ্ঠ অভিনেতা হিসেবে পুরস্কার পান জীবন রয়। সেই সাথে শ্রেষ্ঠ নাট্যকারের পুরস্কারও তার হাতে উঠে আসে। থিয়েটারের সেরা ছাত্র পুরস্কারটিও তার অর্জনের তালিকায় যুক্ত হয়।

তিন তিনটি পুরস্কারে জীবন রয় বেশ উচ্ছ্বাসিত, তিনি বলেন, ‘সত্যিই আমি অনেক আনন্দিত। একসাথে তিনটা ক্যাটাগরিতে পুরস্কার পাবো ভাবিনি। সবার কাছে কৃতজ্ঞ।  আমার জন্য সবাই দোয়া করবেন, সামনে আরো ভালো ভালো কাজ নিয়ে যেন হাজির হতে পারি। তাছাড়া আমার থিয়েটারের হাতেখড়ি গাজী রাকায়েত স্যারের হাত ধরে।  উনার প্রতি সত্যিই অনেক কৃতজ্ঞ আমি।’

‘চারুনীড়ম স্কুল অফ অ্যাক্টিং পুরস্কার ২০১৭’র বিচারকের দায়িত্বে ছিলেন নির্মাতা সালাহ উদ্দিন লাভলু, আয়নাবাজি খ্যাত পরিচালক আমিতাভ রেজা চৌধুরী, অভিনেতা আজিজুল হাকিম, প্রযোজক গাউছুল আলম শাওন ও অভিনেত্রী অপি করিম।

উল্লেখ্য, জীবন রয় ‘শুকনো পাতার নুপুর’সহ আরো বেশ কিছু নাটকে শীঘ্রই কাজ শুরু করবেন বলে জানান।