বান্দরবানে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, বহিস্কার ৪

বান্দরবানে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ সংঘটিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বান্দরবান রাজার মাঠে এ ঘটনা ঘটে। ওই ঘটনায় জেলা ছাত্রলীগের জরুরী সভায় ৪জন ছাত্রলীগ নেতাকর্মী বহিস্কার করা হয়েছে। তারা হলেন, জেলা ছাত্রলীগের নেতা ও সদস্য জুনায়েদ হাসান, সাইফুল ইসলাম আকাশ, শুভ দাস এবং মামুনুর রশিদ।

এদিকে রাতে এ ঘটনায় ৯জনকে অভিযুক্ত করে সদর থানায় একটি সাধারণ ডায়রী রুজু করা হয়েছে। আহত ছাত্রলীগ নেতা আবিদ হাসান ফাহিম বাদী হয়ে এ ডায়রি রুজু করেন। অভিযুক্তরা হলেন, ১। শুভ দাশ, ২। সাইফুল ইসলাম আকাশ, ৩। জোনায়েদ হোসেন, ৪। শাহীন, ৫। হাসান, ৬। জনি, ৭। পরশ, ৮। তানজীদ এবং ৯। টিটু। ঘটনাকে কেন্দ্র করে জেলা ছাত্রলীগের অফিস এবং শহরের বিশেষ বিশেষ স্থানে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

বান্দরবান সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রফিক উল্লাহ বলেন, পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। যেকোন অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

পুলিশ ও দলীয় নেতারা জানান, রবিন বাহাদুরের সংবর্ধনার গাড়ী বহরে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে আকাশ ও ফাহিমের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এ ঘটনার জের ধরে ফাহিম কিয়াংয়ের মোড়ে গিয়ে আকাশকে চড়-থাপ্পড় মারে। পরে আকাশের সমর্থকরা রাজার মাঠে গিয়ে ফাহিমকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বেঁধে যায়।

এ বিষয়ে আকাশ বলেন, র‍্যালীতে ফাহিম আমার উপর রেগে যায় এবং এ নিয়ে আমাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়, ঘটনা ওখানেই শেষ। কিন্তু পরে উনি কিয়াংয়ের মোড়ে আমাকে শার্টের কলার ধরে থাপ্পর মারে।

এদিকে ঘটনার পর উত্তেজনা বিরাজ করছে। দলীয় কার্যালয়ের সামনে এবং শহরের গুরুত্বপূর্ন স্থানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়।

ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শম্পা রাণী সাহা। জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি কাউসার সোহাগ জানান, সমাবেশ শেষে জুনিয়রদের মধ্যে একটি অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেছে। রাত ৮টায় জেলা ছাত্রলীগের এক সভায় ওই ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে ৪জন নেতাকর্মীকে বহিস্কারের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

সোহেল কান্তি নাথ, বান্দরবান প্রতিনিধি