ভারতকে দুইয়ে নামাল বাংলাদেশ!

ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টেস্ট জিতে চাঙা হয়েই দক্ষিণ আফ্রিকায় উড়াল দিয়েছিল বাংলাদেশ। কিন্তু দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে দেখা গেল অন্য বাংলাদেশকে। দুই টেস্টেই শোচনীয় হার, একশর নিচে অলআউটের বিব্রতকর অভিজ্ঞতার সঙ্গে সিরিজই খুইয়েছে মুশফিকুর রহিমের দল। সাদা পোশাকে বিবর্ণ হলেও সমর্থকদের আশা ছিল ওয়ানডেতে মাশরাফি বিন মুর্তজার হাত ধরে ঘুরে দাঁড়াবে বাংলাদেশ।

প্রোটিয়াদের বিপক্ষে ওয়ানডেতে বাংলাদেশ ৩-০ ব্যবধানে পরাজিত হওয়ায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বিরাট কোহলির ভারতও। টানা সাতটি ওয়ানডে সিরিজ জিতেও ওয়ানডে র‍্যাংকিংয়ের শীর্ষস্থানটা ধরে রাখতে পারল না ভারত। কোহলির দলকে টপকে র‍্যাংকিংয়ের শীর্ষে ওঠে এল দক্ষিণ আফ্রিকা। এ যেন নিজের নাক কেটে পরের যাত্রাভঙ্গ! যদিও বাংলাদেশ নিজেদের সাত নম্বর অবস্থানটি ধরে রেখেছে। বাংলাদেশের বর্তমান রেটিং পয়েন্ট ৯২। আটে থাকা শ্রীলঙ্কার চেয়ে বাংলাদেশ এগিয়ে আছে নয় রেটিং পয়েন্টে।

কদিন আগেই ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়াকে ৪-১ এ সিরিজ হারিয়ে ওয়ানডে র‍্যাংকিংয়ের শীর্ষে উঠে এসেছিল বিরাট কোহলির ভারত। ভারতের পয়েন্ট ছিল ৬৩৭৯। র‍্যাংকিংয়ের দুই নম্বরে ছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। তবে ওয়ানডেতে বাংলাদেশকে হোয়াইটওয়াশ করার পর প্রোটিয়াদের পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়ায় ৬৩৮৬; যা ভারতের চেয়ে সাত পয়েন্ট বেশি। যদিও দু’দলের রেটিং পয়েন্ট সমান ১২০। কিন্তু ভগ্নাংশের কিছু ব্যবধানে এগিয়ে থাকা দক্ষিণ আফ্রিকা ওঠে আসে এক নম্বরে।

৩৩৩ রানের হার দিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা সফর শুরু হয় বাংলাদেশের। সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে ইনিংস ও ২৫৪ রানের পরাজয়। এরপর প্রথম ওয়ানডেতে ১০ উইকেট হার, পরের দুই ওয়ানডেতে যথাক্রমে ১০৪ ও ২০০ রানের পরাজয়। সর্বশেষ দুই টি-টোয়েন্টিতেও হারের তেতো স্বাদ। প্রথম টি-টোয়েন্টিতে ২০ রানে হারের পর সফরের শেষ ম্যাচে প্রোটিয়াদের কাছে ৮৩ রানে হারে বাংলাদেশ।