‘নগ্ন জিনসের সাথে ভিক্ষার বাটি ফ্রি’

প্যান্টের আরেক বিবর্তন এই থং জিনস। আর ফ্যাশনে নতুন ধারা তৈরি করে বিতর্কের মুখে পড়লেন জাপানের প্রখ্যাত ডিজাইনার মেইকো বান। কারণ এই পোশাকে উন্মুক্ত থাকে নিম্নাঙ্গের অন্তর্বাস। আর এই জিনস দেখে নিজের ক্ষোভ প্রকাশ করলেন বলিউড নায়িকা বিপাশা বসু।

‘থং জিনস’- ফ্যাশনে নতুন থিম। নিত্য নতুন ট্রেন্ডে গা ভাসিয়ে উৎপত্তি হচ্ছে ভিন্ন ধারার ডিজাইনের ফ্যাশন।  ফ্যাশন সচেতন হিসেবে বেশ নাম ডাক আছে বিপাশার। তিনিও নতুন ট্রেন্ড ট্রাই করতে ভালোবাসেন। কিন্তু এমন ছেঁড়া জিনস, যার ফাঁক দিয়ে দেখা যাবে নিম্নাঙ্গের অন্তর্বাস- এটি মেনে নিতে পারছেন না নায়িকা। এই জিনসের ছবি পোস্ট করে সমালোচনা করলেন বিপাশা।

সোশ্যাল মিডিয়ায় যখন এই জিনস নিয়ে তুমুল হাসাহাসি চলছে, তখন বিপাশা বসুও জানিয়ে দিয়েছেন, থং জিনস বিশ্রী লেগেছে তার। এর নাম রাখা উচত নেকেড জিনস, অর্থাৎ নগ্ন জিনস। শুধু বিপাশা নন, ঋষি কাপুরও এই জিনস নিয়ে একদম নিজস্ব কায়দায় ঠাট্টা করেছেন। তিনি লিখেছেন, দুটি জিনস কিনলে একটি ভিক্ষার বাটি ফ্রি দেয়া উচিত।

ঋষি কাপুরের টুইট দেখে নিজেকে আটকে রাখতে পারেননি আরেক নির্মাতা করণ জোহর। তিনিও টুইটারে ঋষি কাপুরের রসিকতাকে বাহবা জানিয়েছেন। সব মিলিয়ে বোঝা যাচ্ছে, এই থং জিনস পছন্দ করাদের তালিকায় ফ্যাশন সচেতন বলিউড তারকারাও নেই।