মহাধুমধামে মেয়ের বিয়ে দিয়ে ফাঁসলেন এমপি

জাতীয় পার্টির যুগ্ম-মহাসচিব ও ময়মনসিংহ ৫ আসনের সাংসদ সালাউদ্দিন আহমেদ মুক্তির সম্পদের হিসেব চেয়ে সোমবার নোটিশ পাঠানো হবে বলে দুদকের জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রনব কুমার ভট্টাচার্য জানিয়েছেন।

দুর্নীতি দমন কমিশনের একজন কর্মকর্তার সঙ্গে মেয়ের বিয়েতে বিপুল আয়োজনের পর ‘অবৈধ সম্পদ’ অর্জনের অভিযোগের মুখে পড়েছেন ময়মনসিংহের একজন সংসদ সদস্য। দুদকের অনুসন্ধানে এই সংসদ সদস্যের প্রায় আড়াই কোটি টাকার ‘অবৈধ সম্পদের’ তথ্য উঠে আসায় রোববার কমিশনের এক সভায় তার বিরুদ্ধে সম্পদ বিবরণীর নোটিশ অনুমোদন দেওয়া হয় বলে জানান তিনি।

গত ১৭ ফেব্রুয়ারি ময়মনসিংহের মুক্তাগাছা উপজেলা পরিষদ মাঠে এই সাংসদের দুই মেয়ের ‘রাজকীয় বিয়ে’ নিয়ে সংবাদমাধ্যমে প্রতিবেদন প্রকাশ হয়। পুলিশের একজন উপ-পরিদর্শক ও দুদকের একজন উপ-সহকারী পরিচালকের সঙ্গে দুই মেয়ের বিয়ে হয়। সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়, সাংসদ দুই মেয়ের বিয়ের আয়োজনে প্রায় ১৫ হাজার অতিথিকে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন, জবাই করা হয়েছিল ৫০০টি ছাগল। পুরো আয়োজনে খরচ হয়েছিল ‘কয়েক কোটি’ টাকা।

সাংসদের বড় মেয়ে প্রাপ্তবয়স্ক হলেও ছোট মেয়ের বয়স নিয়ে প্রশ্ন উঠে। বিষয়টি নিয়ে দুদকের ওই কর্মকর্তাকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছিল বলে সংস্থাটির একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন। এই বিয়ের পরের মাসে সালাউদ্দিন আহমেদ মুক্তির বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ নিয়ে অনুসন্ধান শুরু করে দুদক। পরিচালক সৈয়দ ইকবাল হোসেনের তত্ত্বাবধানে উপ-পরিচালক শেখ আবদুস সালাম এই অনুসন্ধান করেন বলে প্রনব কুমার জানান।

তিনি বলেন, ‘তার বিরুদ্ধে অনুসন্ধানে স্থাবর ও অস্থাবর সম্পদের তথ্য মিলেছে। এসব যাচাই-বাছাই করতেই সম্পদ বিবরণী দাখিলের জন্য নোটিশ অনুমোদন দিয়েছে কমিশন। নোটিশে সংসদ সদস্য সালাউদ্দিন আহমেদ মুক্তি ও তার উপর নির্ভরশীলদের স্থাবর-অস্থাবর সম্পদের হিসাব চাওয়া হচ্ছে। আগামী ১৫ কর্মদিবসের মধ্যে দুদক সচিব বরাবর সম্পদ বিবরণী দাখিল করতে হবে।’