ঢাকা-উত্তরবঙ্গের দূরত্ব কমবে নতুন রেলপথে

ঢাকা থেকে উত্তরবঙ্গ রুটে ১১২ কিলোমিটার দূরত্ব কমে যাবে। পাশাপাশি ভ্রমণ সময়ও প্রায় তিন ঘণ্টা কমে যাবে।

ঢাকা থেকে উত্তরবঙ্গ রুটে নতুন করে ৯০ কিলোমিটার ডাবল লাইন রেলপথ নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। অনেক দিন বন্ধ থাকার পর আলোর পথ দেখছে এ উদ্যোগটি। রেলপথ মন্ত্রণালয় সূত্র বলছে, ‘বাংলাদেশ রেলওয়ের বগুড়া থেকে শহীদ এম মনসুর আলী স্টেশন (সিরাজগঞ্জ) পর্যন্ত সরাসরি নতুন ডুয়েলগেজ রেলপথ নির্মাণ’ প্রকল্পের আওতায় ৯০ কিলোমিটার নতুন রেললাইন নির্মাণ করা হবে। এর মধ্যে মেইন লাইন ৭৯ দশমিক ৩০ কিলোমিটার এবং লুপ লাইন ১১ দশমিক ৩৫ কিলোমিটার।

প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে দেশের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের সঙ্গে ঢাকা হয়ে দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলের দূরত্ব কমে যাবে। তখন আর ঢাকা থেকে পাবনা ঈশ্বরদী হয়ে উত্তরবঙ্গের কোনো জেলায় যেতে হবে না। এ প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে ঢাকা থেকে বগুড়া হয়ে সরাসরি উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন জায়গায় যাওয়া যাবে। এতে শুধু দূরত্বই কমবে না, কমে যাবে ৩ ঘণ্টা ভ্রমণ সময়ও।

মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, বর্তমানে সিরাজগঞ্জের জামতলী থেকে ঈশ্বরদী হয়ে পার্বতীপুরের দূরত্ব ২৪৬ কিলোমিটার। ঢাকার সঙ্গে দেশের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চল রুটে গাজীপুর, টাঙ্গাইল, সিরাজগঞ্জ, নাটোর, পাবনা, বগুড়া, গাইবান্ধা, রংপুর, কুড়িগ্রাম এবং লালমনিরহাটে রেল যোগাযোগ রয়েছে। এ ব্যবস্থা আরও সহজ করতে নতুন এ রেললাইন নির্মাণ করা হবে।

প্রকল্পের আওতায় মোট ব্যয় হবে ৫ হাজার ২৪৪ কোটি টাকা। এর মধ্যে ভারতীয় ঋণ ২ হাজার ৬৬২ কোটি টাকা। চলতি বছর থেকে ২০২২ সালের মধ্যে এ রেলপথটি নির্মিত হবে। রেল লাইনের পাশাপাশি প্রকল্পের আওতায় ট্র্যাকওয়ার্কস, বাঁধ, স্টেশন বিল্ডিং, সেতু ও কালভার্ট নির্মাণ করা হবে।

এ বিষয়ে রেলপথ মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব মোফাজ্জেল হোসেন জানান, ঢাকা থেকে বৃহত্তর খুলনা, রংপুর ও রাজশাহী বিভাগে রেলপথে যেতে হলে পাবনা ঈশ্বরদী যেতে হয়। এতে সময়ও লাগে অনেক।